হোম / গুগল আর্থকে রুখতে কি দেশে নয়া কানুন
ভাগ করে নিন
ভিউজ্
  • অবস্থা সম্পাদনার জন্য উন্মুক্ত

গুগল আর্থকে রুখতে কি দেশে নয়া কানুন

যে কোনও দেশ , সংস্থা বা ব্যক্তি যাতে এমন ছবি তুলে নিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে তা ব্যবহার করতে না -পারে , এতদিনে সেই বিষয়ে নড়েচড়ে বসল কেন্দ্রীয় সরকার৷

দেশের সংহতি ও নিরাপত্তারক্ষার স্বার্থে নয়া আইন আনতে চলেছে ভারত৷ আকাশ থেকে বিভিন্ন উপগ্রহ , বিমান , বেলুন , মানববিহীন যান বা অন্য কোনও যন্ত্র থেকে তুলে নেওয়া ছবি দেশের নিরাপত্তার জন্য ক্ষতিকর৷ যে কোনও দেশ , সংস্থা বা ব্যক্তি যাতে এমন ছবি তুলে নিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে তা ব্যবহার করতে না -পারে , এতদিনে সেই বিষয়ে নড়েচড়ে বসল কেন্দ্রীয় সরকার৷ আকাশ থেকে তোলা কোনও ছবি বা আকাশপথে জোগাড় করা কোনও তথ্য --- প্রযুক্তিগত পরিভাষায় এরই নাম ‘জিওস্প্যাশিয়াল ইনফর্মেশন ’ বা ভূস্থানিক তথ্য৷ গত এক দশকেরও বেশি সময় ধরে বহুবার প্রশ্নের মুখে পড়েছে এমন তথ্য৷ আন্তর্জাতিক সংস্থা গুগলের পক্ষ থেকে গুগল আর্থ নামের একটি অ্যাপ্লিকেশন লঞ্চ করে প্রথম যে কোনও দেশের যে কোনও অঞ্চলে এমনকি যে কোনও পাড়ায় উঁকি মারার ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়৷ যদিও কোনও দেশের নিরাপত্তার জন্য এই অ্যাপ্লিকেশন কতটা নির্ভরযোগ্য , তা নিয়ে বিতর্কও কম হয়নি৷ নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে ভারতের প্রতিবেশী চিন তো সে দেশে গুগল আর্থের প্রয়োগ বন্ধই করে দেয়৷ কিন্ত্ত এ বিষয়ে ভারত সরকার শুরু থেকেই নীরব ছিল৷

এত দিনে ভূস্থানিক তথ্য বিষয়ে নির্দিষ্ট আইন আনার উদ্যোগ নিতে চলেছে এ দেশের সরকার৷ আইনের খসড়ায় প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে , প্রশাসনকে না -জানিয়ে দেশের ভূস্থানিক তথ্য জোগাড় , সেই তথ্য প্রকাশ এবং আদানপ্রদানে অভিযুক্ত ব্যক্তির সাত বছর পর্যন্ত কারাবাস এবং এক থেকে ১০০ কোটি টাকা পর্যন্ত জরিমানা ধার্য করা হতে পারে৷ ভূস্থানিক তথ্য সম্পর্কে যে আইন আনতে চলেছে প্রশাসন , তাতে বলা আছে যে ভারতীয় নাগরিকরা ভারত ভূখণ্ডের মধ্যে থেকে এমন ভাবে তথ্য জোগাড় করবেন তাঁরা তো বটেই , এই আইনের আওতায় তাঁরাও পড়বেন যাঁরা --- ভারতের নাগরিক কিন্ত্ত দেশের বাইরে রয়েছেন , সরকারি কর্মচারী , ভারতে নথিভুক্ত কোনও জাহাজ বা বিমানে উপস্থিত ব্যক্তি , ভারতের ভূস্থানিক তথ্য বিনা অনুমতিতে জোগাড় করতে গিয়ে দেশের মধ্যে বা বাইরে ধরা পড়েছেন এমন যে কোনও ব্যক্তিও এই আইনের বলে দোষী সাব্যস্ত হবেন৷ এই আইনের বলে কেবলমাত্র যে কোনও ব্যক্তিই অভিযুক্ত হতে পারেন তা -ই নয় , কোনও ব্যক্তির পাশাপাশি একই সঙ্গে কোনও সংস্থা , সংগঠন , ট্রাস্টও এই আইনে দোষী সাব্যস্ত হতে পারে৷ একাধিক ব্যক্তি যদি নিজেদের মধ্যে কোনও সংগঠন তৈরি করে এমন তথ্য জোগাড়ে অভিযুক্ত হন , তবে তাঁরাও দোষী সাব্যস্ত হতে পারেন বলে খসড়ায় প্রস্তাব আনা হয়েছে৷ এই আইন যথাযথ ভাবে মানা হচ্ছে কি না , তা খতিয়ে দেখার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের অধীনে একটি বিশেষ কমিটি তৈরি করতে চলেছে৷ কারও কাছে ভারতের কোনও ভূস্থানিক তথ্য আগে থেকেই মজুত থাকলে সেই ব্যক্তি বা সংস্থা ওই তথ্য এই কমিটির কাছে দেখিয়ে নিতে বাধ্য থাকবে বলে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে খসড়ায়৷ কমিটির সদস্যরা সেই তথ্য খতিয়ে দেখে যদি মনে করেন তা দেশের নিরাপত্তার পক্ষে হানিকর নয় , তবেও সেই তথ্য ব্যক্তিগত ভাবে ব্যবহার করার জন্য রাখা যেতে পারে৷ অন্যথায় ওই তথ্য নষ্ট করে দিতে হবে৷ আগামী দিনে ভারতের যে কোনও জায়গার ভূস্থানিক তথ্য জোগাড় করার জন্য কোনও ব্যক্তি বা সংস্থাকে কেন্দ্রের থেকে লাইসেন্স পেতে হবে৷ অন্যথায় কঠোর শাস্তি অপেক্ষা করে থাকবে দোষী ব্যক্তি বা সংস্থার জন্য৷ অনুমান করা হচ্ছে , এ বার ভারতের ভূস্থানিক তথ্য গুগল আর্থ নয় , ভারতের থেকেই যাতে পেতে হয় তারই ব্যবস্থা করতে এই আইন আনতে চলেছে প্রশাসন৷ আকাশ থেকে তোলা কোনও ছবি বা আকাশপথে জোগাড় করা কোনও তথ্য --- প্রযুক্তিগত পরিভাষায় এরই নাম ‘জিওস্প্যাশিয়াল ইনফর্মেশন ’ বা ভূস্থানিক তথ্য৷ গত এক দশকেরও বেশি সময় ধরে বহুবার প্রশ্নের মুখে পড়েছে এমন তথ্য৷

সুত্র:এই সময়

2.96774193548
মন্তব্য যোগ করুন

(ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করুন).

Enter the word
Back to top