ভাগ করে নিন
ভিউজ্
  • অবস্থা সম্পাদনার জন্য উন্মুক্ত

ঢেঁড়শ

এখানে ঢেঁড়শ চাষ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

ঢেড়শকে ইংরেজিতে বলা হয় ওকরা (Okra)। আমেরিকার বাইরের ইংরেজিভাষী স্থানে এটি লেডিজ ফিঙ্গার (Lady's Fingers) নামেও পরিচিত। ঢেঁড়শ (অন্য নাম ভেন্ডি) Malvaceae পরিবারের এক প্রকারের সপুষ্পক উদ্ভিদ। ঢেঁড়শের বৈজ্ঞানিক নাম Abelmoschus esculentus; অথবা Hibiscus esculentus L

ঢেঁড়শ একটি পুষ্টিকর গ্রীষ্মকালীন সবজি। আমাদের দেশে সাধারণত মাঘ মাসের শুরু থেকে ভাদ্র মাস পর্যন্ত এ সবজির চাষ হয়। ঢেঁড়শের বিভিন্ন জাতগুলোর মধ্যে পুষা শ্রাবণী, প্রভাতী ক্রান্তি, অর্কা-অনামিকা উল্লেখযোগ্য। এ জাতগুলোর মধ্যে পুষা শ্রাবণী স্বল্প মেয়াদি। এছাড়া আমাদের দেশিও কিছু জাত রয়েছে।

বীজের প্রকার

ঢেঁড়শ চাষের জন্য সব সময় নতুন বীজ ব্যবহার করা ভাল। এতে কৃষক লাভবান হবে। ঢেঁড়শ চাষের জন্য প্রথম আলো-বাতাস পায় এমন জমি নির্বাচন করতে হবে। জমি উঁচু হবে এবং পানি নিকাশের ভাল সুবিধা থাকতে হবে। বেলে দো-আঁশ থেকে এঁটেলে সব ধরনের মাটিতেই ঢেঁড়শের চাষ হলেও দো-আঁশ মাটিই বিশেষ করে ঢেঁড়শ চাষের জন্য উপযোগী। কয়েকবার চাষ দেবার পর শেষ চাষের সময় বিঘাপ্রতি ১০ কুইন্টাল শুকনো গোবর অথবা পচন সার, ৪০ কিলোগ্রাম সুপার ফসফেট ভালভাবে মিশিয়ে দিতে হবে মাটির সাথে।

বীজ রোপণের পধতি

জমিতে বীজ রোপণের ৪০ দিন পর বিঘাপ্রতি ৬ কিলোগ্রাম ইউরিয়া সার মাটির সাথে মিশিয়ে দিতে হবে। ঢেঁড়শের চারাগুলো ৫ থেকে ৬ ইঞ্চি হয়ে যাওয়ার পর প্রতি চারায় কুড়িগ্রাম পরিমাণে কেঁচো সার সারির দু’দিক থেকে গোঁড়ায় দিয়ে মাটি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। এতে অধিক ফলন পাওয়া যাবে।

অধিক উৎপাদনের জন্য করনীয়

এছাড়া অধিক উৎপাদনের জন্য এজটবেকটার ও সফটিকা নামক জীবাণু সারও ব্যবহার করা যেতে পারে। এতে বিঘাপ্রতি ফলন কুড়ি থেকে ত্রিশ শতাংশ পর্যন্ত বেড়ে যায়। ঢেঁড়শের বীজ জমিতে লাগানোর আগে ১০ থেকে ১৩ ঘণ্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখার পর অঙ্কুরোদগম হলে সারিতে লাগাতে হবে। ঢেঁড়শ চাষে দু’টি সারির মধ্যে এক ফুট ও দুটি বীজের মধ্যে ৬ ইঞ্চি ব্যবধান রাখতে হবে।

পরিচর্যার ভেতরে আগাছা পরিস্কার করে গাছ থেকে পাঁচ সেন্টিমিটার দূরে প্রতিবিঘায় ৬ কিলোগ্রাম হিসেবে ইউরিয়া সার টপড্রেস হিসেবে প্রয়োগ করতে হবে। পোকামাকড় ঠেকাতে মাটিতে শেষ চাষের সময় বিঘাপ্রতি আড়াই কিলোগ্রাম ম্যালাথিয়ন ৫ শতাংশ গুঁড়ো কীটনাশক মিশিয়ে দিতে হবে। তাছাড়া চাষের সময় নিমপাতা মেশালেও মাটিতে থাকা কীটপতঙ্গ দমন হবে। ঢেঁড়শ চাষে ফল ছিদ্রকারী পোকার আক্রমণ ঘটলে ম্যালাথিয়ন ৫০ ইসি নামক ওষুধ প্রতি লিটার পানিতে এক চামচ হারে মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে। বিভিন্ন ব্যাক্টেরিয়া ঢেঁড়শ চাষকে আক্রমণ করলে ডায়াথিন এম-৪৫, পেকটাফ, ব্লাইটক্স প্রভৃতি ওষুধ ৪০ গ্রাম করে ১৬ লিটার পানিতে মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে। তবে ওই ওষুধ প্রয়োগের ৪ থেকে ৫ দিন পর্যন্ত ক্ষেত থেকে ঢেঁড়শ তোলা যাবে না।

সুত্র: বিকাশপিডিয়া, পশ্চিমবঙ্গ

3.0
গোপাল জানা Jan 19, 2018 08:09 AM

ঢেঁড়শ চাষ কিভাবে করবো

মন্তব্য যোগ করুন

(ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করুন).

Enter the word
ন্যাভিগেশন
Back to top