ভাগ করে নিন

পার্মানেন্ট একাউন্ট নম্বর বা প্যান কার্ড

পার্মানেন্ট একাউন্ট নম্বর বা প্যান কার্ড কি , তাঁর ব্যবহার, আবেদন করার পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে ।

পারমানেন্ট অ্যাকাউন্ট নম্বর (প্যান) কার্ড হল একটি ফটোসহ পরিচয়পত্র। প্রতিটি কার্ডে অক্ষর এবং সংখ্যা মিলিয়ে ১০ সংখ্যক অনন্য নম্বর থাকে। এই কার্ড ভারত সরকারের আয়কর বিভাগ দিয়ে থাকে। একে ফটো সহ পরিচয়পত্র হিসাবে ব্যাঙ্ক, অন্যান্য আর্থিক কাজ-কর্মে এবং ই-টিকিট সহ ট্রেন ভ্রমণের সময় প্রয়োজন হয়। অর্থাৎ যেকোনও আর্থিক লেনদেনকে সরকারি ভাবে নথিভুক্ত করতে প্যান কার্ড গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেয়। এর পাশাপাশি কোনও ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান সঠিক আয়কর দিচ্ছে কিনা তা জানতেও সহায়তা করে প্যানকার্ড। এটি আয়কর ফাঁকি এবং বেআইনি আর্থিক লেনদেন রুখতে সহায়তা করে।

প্যানের ব্যবহার

নিম্নলিখিত কাজের ক্ষেত্রে প্যান কার্ড বাধ্যতামূলক

  • আয়কর রির্টান জমা দেওয়া
  • শেয়ার কেনা-বেচার জন্য ডিম্যাট অ্যাকাউন্ট খুলতে
  • এক ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য অ্যাকাউন্টে ৫০,০০০ বা তার বেশি টাকা তোলা বা জমা করা বা পাঠাতে
  • আয়কর ফেরতের ক্ষেত্রে

এছাড়া যেসব ক্ষেত্রে প্যানকার্ড লাগে :

  • ৫ লাখ বা তার বেশি অবহণযোগ্য সম্পত্তি কেনাবেচার ক্ষেত্রে
  • বাইক ছাড়া অন্যান্য গাড়ি কিনতে
  • হোটেল বা রেস্টুরেন্ট এককালীন ২৫,০০০ টাকা খরচ করলে
  • বিদেশে বেড়াতে গিয়ে নগদে ২৫,০০০ টাকার বেশি খরচ করলে
  • বন্ড বা ডিবেঞ্চার কিনতে হলে
  • মিউচ্যুয়াল ফান্ড কেনার ক্ষেত্রে
  • গয়না কিনতে ৫ লাখ টাকার বেশি খরচ করলে

যোগ্যতা

প্যান কার্ডের জন্য আবেদন করার ক্ষেত্রে কোনও শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রযোজন হয় না। যে কোনও ব্যক্তি, ফার্ম, যৌথ উদ্যোগ প্যান কার্ডের জন্য আবেদন জানাতে পারে। এর জন্য বয়েসের কোনও সীমা নেই। যে কোনও বয়েসেই প্যান কার্ডের জন্য আবেদন করা যেতে পারে।

কাদের ক্ষেত্রে প্যানকার্ডের জন্য আবেদন করা বাধ্যতামূলক

  • যে কেউ যিনি করযুক্ত আয় করেন। যিনি বিদেশে থাকেন এবং এদেশে কর দেন
  • যিনি ব্যবসা করেন

প্যান কার্ডের জন্য কী কী নথি দিতে হবে

প্যান কার্ডের জন্য আবেদনের সময় সঠিক নথি জমা দেওয়া গুরুত্বপূর্ণ। অনেকেই আবেদনের সঙ্গে প্রয়োজনীয় সঠিক নথি জমা দেন না। সঠিক নথি জমা না দিলে প্যান কার্ডের আবেদন গ্রাহ্য হবে না। সেটি বাতিল হয়ে যাবে। তাই প্যান কার্ডের জন্য আবেদনের সঙ্গে জেনে নিন কী কী নথি জমা দিতে হবে। আবেদনের সঙ্গে অবশ্যই নিম্নলিখিত নথি এবং ফি জমা দিন।

সাম্প্রতিক পাসপোর্ট সাইজের ভালো রঙিন ফটো

  • ফি হিসাবে ১০৫ টাকার ডিমান্ড ড্রাফ্‌ট/চেক
  • পরিচয়পত্রের ফটোকপি
  • ঠিকানার প্রমাণপত্রে ফটো কপি

নিম্নলিখিত নথিগুলির যে কোনও একটিকে পরিচয়ের প্রমাণ এবং ঠিকানার প্রমাণপত্র হিসাবে জমা দিন।

পরিচয়ের প্রমাণ

১. স্কুললিভিং সার্টিফিকেট

২. মাধ্যমিকের শংসাপত্র

৩. কোনও নথিভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ডিগ্রি

৪. জমা খাতের স্টেটমেন্ট

৫. ক্রেডিট কার্ডের স্টেটমেন্ট

৬. ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট স্টেটমেন্ট/ব্যাঙ্কের পাসবই

৭. জলের বিল

৮. রেশন কার্ড

৯. সম্পতি করের অ্যাসেসমেন্ট অর্ডার

১০. পাসপোর্ট

১১. ভোটার পরিচয়পত্র

১২. ড্রাইভিং লাইসেন্স

১৩. সাংসদ, বিধায়ক, পুরপিতা বা কোনও গেজেটেড অফিসারের স্বাক্ষরিত পরিচয়পত্র

ঠিকানার প্রমাণপত্র

১. বিদ্যুৎ বিল

২. টেলিফোন বিল

৩. জমা খাতের স্টেটমেন্ট

৪. ক্রেডিট কার্ড স্টেটমেন্ট

৫. ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট স্টেটমেন্ট/ব্যাঙ্কের পাসবই

৬. বাড়ি ভাড়ার রসিদ

৭. নিয়োগকারীর শংসাপত্র

৮. পাসপোর্ট

৯. ভোটার পরিচয়পত্র

১০. সম্পতি করের অ্যাসেসমেন্ট অর্ডার

১১. ড্রাইভিং লাইসেন্স

১২. রেশন কার্ড

১৩. সাংসদ, বিধায়ক, পুরপিতা বা কোনও গেজেটেড অফিসারের স্বাক্ষরিত পরিচয়পত্র

বিঃদ্রঃ ঠিকানার প্রমাণ হিসাবে জমা দেওয়া নথির মধ্যে ক্রমিক নং ১ থেকে ৭ পর্যন্ত যেন আবেদনের দিন থেকে ছ’মাসের বেশি পুরনো না হয়।

প্যান কার্ডের জন্য প্রদেয় ফি এবং জমা দেওয়ার প্রক্রিয়া

 

সাধারণভাবে প্যান কার্ডের জন্য আবেদন প্রক্রিয়াকরণের ফি পরিষেবা কর সহ ১০৫ টাকা। কার্ডের জন্য নির্দিষ্ট ফি এবং তা জমা দেওয়ার নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া আছে। এই প্রক্রিয়া মেনেই ফি জমা দিতে হবে।

  • প্যান কার্ড আবেদন প্রক্রিয়াকরণের জন্য ফি ১০৫ টাকা (৯৩.০০ + ১২.৩৬% পরিষেবা কর)

নিম্নের মাধ্যমগুলির সাহায্যে ফি জমা দেওয়া যেতে পারে

  • ডিমান্ড ড্রাফ্ট
  • চেক
  • ক্রেডিট/ডেবিট কার্ড
  • নেট ব্যাকিং

ডিমান্ড ড্রাফটের মাধ্যমে ফি জমা দেওয়ার জন্য

ডিমান্ড ড্রাফটের মাধ্যমে ফি জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে নিম্নলিখিত বিষয়গুলি পালন করতে হবে।

  • ডিমান্ড ড্রাফট/চেক দিতে হবে ‘এনএসডিএল-প্যান’-এর নামে
  • ডিমান্ড ড্রাফট প্রদেয় হবে মুম্বইয়ে এবং নাম ও স্বীকৃতি প্রদানকারী সংখ্যা লেখা থাকবে চেকের পেছনে।

চেকের মাধ্যমে ফি জমা দেওয়া

চেকের মাধ্যমে ফি জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে নিম্নলিখিত বিষয়গুলি খেয়াল রাখতে হবে।

  • যিনি চেকের মাধ্যমে আবেদনের ফি জমা দেবেন তাকে স্থানীয় চেক কেটে দেশের মধ্যে এইচডিএফসি ব্যাঙ্কের যে কোনও শাখায় জমা দিতে হবে (দাহেজ ছাড়া)।
  • চেকের পেছনে নাম ও স্বীকৃতি প্রদানকারী সংখ্যা লেখা থাকবে।
  • জমা দেওয়ার স্লিপে এনএসডিএলপিএন লিখে দিতে হবে।

এই পদ্ধতিগুলি না মানলে আবেদনটি বাতিল হয়ে যাবে।

বিদেশে বসবাসকারী ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে

বিদেশে বসবাসকারী ব্যক্তিও এদেশে আর্থিক লেনদেনের জন্য প্যান কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারেন। তবে কোনও ব্যক্তির যদি দেশের বাইরে যোগাযোগের ঠিকানা হয় তবে তার প্যান কার্ডের জন্য আবেদনের ফি আলাদা। বিদেশে বসবাসকারী ব্যক্তিদের প্যান কার্ডের জন্য ফি ৯৭১ টাকা (আবেদনের ফি ৯৩.০০টাকা + জমা দেওয়ার খরচ ৭৭১.০০টাকা + ১২.৩৬% পরিষেবা কর)। ক্রেডিট কার্ড বা নেট ব্যাকিং-এর মাধ্যমে এই ফি জমা দেওয়া যেতে পারে।

তবে, বর্তমানে ভারতের বাইরে নির্দিষ্ট কয়েকটি দেশে প্যান কার্ড পাঠানোর সুবিধা রয়েছে। সেই দেশগুলির তালিকার লিঙ্ক দেওয়া হল https://tin.tin.nsdl.com/pan/Country.html

প্যানের অনলাইন আবেদনের পদ্ধতি

  • প্যান কার্ডের জন্য আবেদনের প্রক্রিয়া শুরু করতে আপনার সঙ্গে অবশ্যই ১০৫ টাকার ডিডি/চেক বা ক্রেডিট কার্ড থাকতে হবে, অনলাইন ফি জমা দেওয়ার জন্য।
  • অনলাইনে প্যানের জন্য আবেদন করতে https://tin.tin.nsdl.com/pan/form49A.html বা http://www.utitsl.co.in/utitsl/uti/newapp/newpanapplication.jsp -তে ক্লিক করুন
  • প্রথমে — ওয়ার্ড/সার্কেল, রেঞ্জ, কমিশনার, এরিয়া কোড, এও কোড, রেঞ্জ কোড এবং এও নম্বর সংক্রান্ত তথ্য পূরণ করুন।
  • উপরে উল্লেখিত তথ্য সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হলে https://tin.tin.nsdl.com/pan/servlet/AOSearch?alpha=A&display=N ক্লিক করুন।
  • এই তথ্য আয়কর অফিস থেকেও পাওয়া যাবে
  • বিস্তারিত তথ্য হাতের কাছে রেখে ফর্ম পূরণ করা শুরু করুন।
  • ফর্মে আপনার অফিসেরও ঠিকানা দিতে হবে। যদি আপনার কোনও অফিসের ঠিকানা না থাকে তবে এ জন্য আপনি আপনার অন্য যে কোনও ঠিকানা ব্যবহার করতে পারেন
  • ফর্ম ভর্তি করা হয়ে গেলে সেটি জমা (সাবমিট) করুন
  • মিলিয়ে দেখে নিন আপনি যে তথ্য দিয়েছেন তা সঠিক কিনা। যদি তথ্য সঠিক হয়, তবে পাতার নীচে যে কোডটি দেখাচ্ছে সেটি দিয়ে ‘কনর্ফাম’-এ ক্লিক করুন।
  • উপরিক্ত পদ্ধতি সম্পন্ন হলে স্বীকৃতি (অ্যাকোনলেজমেন্ট) নম্বর একটি ফর্ম চলে আসবে
  • এই স্বীকৃতি নম্বর হল আপনার প্যান কার্ড আবেদনের জন্য অনন্য নম্বর
  • প্যান কার্ডে জন্য আপনার আবেদনের অবস্থা জানতে এই স্বীকৃতি নম্বরটি ব্যবহার করুন
  • অ্যাকোনলেজমেন্ট ফর্মটি সেভ করে রাখুন ও প্রিন্ট নিন
  • এই স্বীকৃতি ফর্মের প্রিন্টে আপনার সদ্য তোলা রঙিন পাসপোর্ট ফটো আটকান এবং সই করুন (নির্দিষ্ট বক্সের মধ্যে, যেন বক্সের লাইন স্পর্শ না করে)
  • অ্যাকোনলেজমেন্ট ফর্ম সই করার জন্য কালো বল পেন ব্যবহার করুন
  • এই আবদনের সঙ্গে আপনার পরিচয়ের প্রমাণপত্রের ফটোকপি, ঠিকানার প্রমাণের ফটো কপি এবং আবেদনের ফি হিসাবে ১০৫ টাকা ডিমান্ড ড্রাফট জুড়ে দিন
  • ডিডি/ চেকের পিছনে আপনার নাম এবং স্বীকৃতি নম্বর লিখে দিন
  • যদি আপনি চেকের মাধ্যমে ফি জমা দেন তবে যে কোনও এইচডিএফসি ব্যাঙ্কে জমা করুন
  • এনএসডিএল অফিসে আপনার আবেদনটি পাঠানোর আগে মিলিয়ে নিন আবেদনের সঙ্গে নিম্নলিখিত নথিগুলি জুড়েছেন কিনা :
  • অ্যাকোনলেজমেন্ট ফর্ম (ছবি এবং সই সহ)
  • পরিচয় প্রমাণপত্রের ফটোকপি
  • ঠিকানার প্রমাণপত্রের ফটোকপি
  • ১০৫ টাকার ডিমান্ড ড্রাফট
  • খামের উপরে লিখুন ‘অ্যাপ্লিকেশন ফর প্যান- অ্যাকোনলেজমেন্ট নম্বর’ (যেমন, অ্যাপ্লিকেশন ফর প্যান-৮৮১০১০১০০০০০৯৭)
  • এনএসডিএলে আবেদন পাঠান, ঠিকানা

ইনকাম ট্যাক্স প্যান সার্ভিসেস ইউনিট, ন্যাশনাল সিকিউরিটিজ ডিপোসিটরি লিমিটেড, তৃতীয় তল, স্যাফায়ার চেম্বারস, ব্যানের টেলিফোন এক্সচেঞ্জের কাছে, ব্যানের, পুনে ৪১১০৪৫, মহারাষ্ট্র।

(Income Tax PAN Services Unit, National Securities Depository Limited, 3rd Floor, Sapphire Chambers, Near Banner Telephone Exchange, Banner, Pune - 411045 (Maharashtra))

  • অনলাইন আবেদন করার ১৫ দিনের মধ্যে সংশ্লিষ্ট অফিসে আপনার অ্যাকোনলেজমেন্ট ফর্ম, ডিম্যান্ড ড্রাফ্‌ট ও অন্য নথি পৌঁছনো উচিত
  • প্যান কার্ডের জন্য সমস্ত প্রক্রিয়া শুরু হবে আপনার পাঠানো নথি যাচাই এবং ডিডি/চেকের মাধ্যমে পাঠানো আবেদনের ফি হাতে পাওয়ার পর
  • আবেদনর অবস্থা জানতে ই-মেল করুন tininfo@nsdl.co.in, এসএমএস করুন প্যান <স্পেস> স্বীকৃতি নম্বর, ৫৩০৩০ নম্বরে, https://tin.tin.nsdl.com/pantan/StatusTrack.html ক্লিক করেও আপনার আবদনের অবস্থা জানতে পারেন।

আরও বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন https://tin.tin.nsdl.com/pan/form49A.htmlhttp://www.utitsl.co.in/utitsl/uti/newapp/newpanapplication.jsp

ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে প্যান কার্ডের জন্য আবেদন

অনলাইনের পাশাপাশি ম্যানুয়াল পদ্ধতিতেও প্যান কার্ডের জন্য আবেদনের ব্যবস্থা রয়েছে। যেহেতু সকলে অনলাইনের বিষয়টি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল নন বা ততটা দক্ষ নন। তাছাড়া দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়লেও এখনও সেভাবে তার বিস্তৃতি ঘটে নি। তাই যারা এই অনলাইন বিষয়টি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল নন বা যাদের কাছে সেই সুবিধা নেই, তারা যাতে আবেদন করতে পারেন সে কারণে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে আবেদনের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে। ম্যানুয়াল পদ্ধতি আবেদনের জন্য ফর্মটি ডাউনলোড করে নিতে পারেন বা স্থানীয় প্যান অফিসে গিয়ে আবেদন পত্র সংগ্রহ করতে পারেন। আপনার নিকটবর্তী প্যান অফিসের হদিশ পাওয়ার জন্য ওয়েবসাইট লিঙ্ক নিচে দেওয়া হয়। সংশ্লিষ্ট লিঙ্কটিতে ক্লিক করে নিকবর্তী প্যান অফিসটি খুঁজে নিতে পারেন।

ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে প্যান কার্ডের জন্য আবেদন ক্ষেত্রে যে যে জিনিসগুলি হাতের কাছে রাখবেন :

  • সাম্প্রতিক রঙিন পাসপোর্ট সাইজ ফটো
  • কালো বল পেন (প্রথমে ফর্মটি পেনসিল দিয়ে পূরণ করে নিন।এতে ভুল হওয়ার সম্ভাবনা কমে যাবে।পরে তা মুছে দিন।)
  • প্রদেয় ফি-র চেক বা ডিমান্ড ড্রাফ্ট
  • ডাউন লোড করা বা প্যান অফিস থেকে সংগ্রহ করা আবেদন পত্র
  • প্যান আবেদন ফর্ম নম্বর ৪৯এ-র ডাউনলোডের জন্য ...এখানে ক্লিক করুন
  • কালো বল পেন দিয়ে আবেদন পূরণ করুন। আপনার রঙিন ফটো আটকান এবং নির্দিষ্ট বক্সে সই করুন
  • ৪৯এ ফর্ম পূরণ করা সংক্রান্ত নির্দেশাবলীর জন্য ...এখানে ক্লিক করুন
  • প্রয়োজনীয় নথি এবং ফি-র ডিডি/চেক জুড়ে দিন
  • স্থানীয় প্যান কেন্দ্রে গিয়ে আপনার আবেদন জনা করুন
  • আপনার নিকটবর্তী প্যান আবেদন সংগ্রহ কেন্দ্রের হদিশ পেতে ...এখানে ক্লিক করুন

প্যান কার্ড পরিষেবা সংক্রান্ত অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ লিঙ্ক

সুত্রঃ ইনকামট্যাক্স ডিপার্টমেন্ট, ভারতবর্ষ

<a title="External website that opens in new window" class="ext-link-icon" target="_blank"
2.86666666667
মন্তব্য যোগ করুন

(ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করুন).

Enter the word
ন্যাভিগেশন
Back to top