হোম / ই-গভর্ন্যান্স / বিভিন্ন সেবা / ল্যান্ডলাইনের খরচ কমাল ট্রাই
ভাগ করে নিন
ভিউজ্
  • অবস্থা সম্পাদনার জন্য উন্মুক্ত

ল্যান্ডলাইনের খরচ কমাল ট্রাই

মোবাইল ফোনে ইনকামিং কলের চার্জ তুলে দেওয়ার পর থেকেই হুহু করে কমছে ল্যান্ডলাইন ফোনের সংখ্যা৷‌ একের পর এক গ্রাহক ছেড়ে দিচ্ছেন দীর্ঘদিনের ল্যান্ডলাইন৷‌

মোবাইল ফোনে ইনকামিং কলের চার্জ তুলে দেওয়ার পর থেকেই হুহু করে কমছে ল্যান্ডলাইন ফোনের সংখ্যা৷‌ একের পর এক গ্রাহক ছেড়ে দিচ্ছেন দীর্ঘদিনের ল্যান্ডলাইন৷‌ ২০১৪ সালের শেষের হিসেবে দেশে যখন মোবাইল গ্রাহক সংখ্যা ৯৪.৩৯ কোটি, তখন ল্যান্ডলাইনের গ্রাহক মাত্র ২.৭ কোটি৷‌ এই ঝোঁক রুখতে সোমবার ল্যান্ডলাইন ফোনের খরচ আরও কিছুটা কমিয়ে দিল ট্রাই৷‌ নতুন নিয়মে এক পরিষেবা প্রদানকারী সংস্হার ল্যান্ডলাইন থেকে অপর সংস্হার ল্যান্ডলাইন বা মোবাইলে ফোন করার জন্য আর কোনও খরচ দিতে হবে না৷‌ আগে এক সংস্হার ল্যান্ডলাইন থেকে অপর সংস্হার ল্যান্ডলাইন বা মোবাইলে ফোন করার জন্য ২০ পয়সা করে ইন্টার-কানেকশন চার্জ কাটা হত৷‌ এতে ল্যান্ডলাইন ফোনের মাশুল বেশ কিছুটা কমে যাবে৷‌ শুধু ল্যান্ডলাইন নয়, ট্রাই এদিন বিভিন্ন মোবাইল সংস্হার জন্যও এই ইন্টার-কানেকশন চার্জ ৩০শতাংশ কমিয়েছে৷‌ ২০ পয়সা থেকে তা কমে হয়েছে ১৪ পয়সা৷‌ এক বিবৃতিতে ট্রাই জানিয়েছে, অয়্যারলাইন নেটওয়ার্কে বিনিয়োগ এবং এর ব্যবহার বাড়াতে চাই আমরা, যাতে এটি হাই স্পিড ইন্টারনেট পরিষেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে একটি অন্যতম উপযুক্ত মাধ্যম হয়ে উঠতে পারে৷‌ সেজন্যই আমরা এক সংস্হার অয়্যারলাইন থেকে অন্য সংস্হার অয়্যারলাইন ফোনে এফ টি সি (ফি‘ড ট্রান্সমিশন চার্জ) এবং সেই সঙ্গে এক সংস্হার অয়্যারলাইন থেকে অন্য সংস্হার অয়্যারলেস ফোনে এম টি সি (মোবাইল ট্রান্সমিশন চার্জ) তুলে দেওয়ার সুপারিশ করছি৷‌ আমরা মনে করছি, যেহেতু অয়্যারলাইন থেকে অয়্যারলেস ফোনে কল করার এম টি সি শূন্য করে দেওয়া হচ্ছে, তাই অয়্যারলাইন পরিষেবা প্রদানকারী সংস্হারা এখন থেকে আরও আকর্ষণীয়, উদ্ভাবনী ট্যারিফ প্যাকেজ দিতে পারবে৷‌ যেমন নির্দিষ্ট রেন্টালে আনলিমিটেড আউটগোয়িং কল বা অনেক বেশি আউটগোয়িং কলের সুবিধা দিতে পারবে৷‌ আবার অয়্যারলেস বা মোবাইল নেটওয়ার্ক থেকে অয়্যারলাইন নেটওয়ার্কে ফোন করলে ট্রান্সমিশন চার্জ যেহেতু লাগবে না, সেহেতু অপারেটররা মোবাইল থেকে ল্যান্ডলাইনে ফোন করার ক্ষেত্রেও ট্যারিফ কমিয়ে দিতে পারবে৷‌ ল্যান্ডলাইনের বাজারে একছত্র আধিপত্য যেহেতু রাষ্ট্রায়ত্ত বি এস এন এল-এর রয়েছে, তাই উপকৃত তারাই বেশি হবে৷‌ ল্যান্ডলাইন ফোনের বাজারে ৬২.৭১শতাংশ বি এস এন এল-এর দখলে৷‌ তার পরে রয়েছে যথাক্রমে এম এন টি এল (১৩.০৪শতাংশ), ভারতী এয়ারটেল (১২.৫৫শতাংশ), টাটা টেলিসার্ভিসেস (৫.৯৮শতাংশ) এবং রিলায়েন্স কমিউনিকেশন (৪.৩৯শতাংশ)৷‌ এ ছাড়া ভিডিওকনের কোয়াড্রান্ট, ভোডাফোন এবং সিস্টেমা শ্যাম-এর বাজার ১.২ শতাংশের আশেপাশে৷‌ বেসরকারি সংস্হাগুলি মূলত ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট পরিষেবা দেওয়ার জন্যই ল্যান্ডলাইন ব্যবহার করে থাকে৷‌

সূত্র : আজকাল, ২৪ ফেব্রুয়ারি,২০১৫

2.91525423729
মন্তব্য যোগ করুন

(ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করুন).

Enter the word
ন্যাভিগেশন
Back to top