ভাগ করে নিন
ভিউজ্
  • অবস্থা সম্পাদনার জন্য উন্মুক্ত

দীপা কর্মকার

জন্ম

৯ আগস্ট ১৯৯৩ ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলায় জন্মগ্রহণকারী একজন ভারতীয় আর্টিস্টিক বা শৈল্পিক জিমন্যাস্ট। তিনি গ্লাসগোতে অনুষ্ঠিত ২০১৪ কমনওয়েলথ গেমসে প্রথম ভারতীয় জিমন্যাস্ট হিসাবে ব্রোঞ্জ পদক জিতেন।এর পূর্বে জিমন্যাস্টিকসে কোন ভারতীয় আন্তর্জাতিক কোন সম্মাননা পায়নি।

কর্মকার জিমন্যাস্টিকস প্রতিযোগিতার সবচেয়ে কঠিন বিভাগ প্রডানোভা ভল্ট সম্পন্নকারী পাঁচ নারীর মধ্যে একজন, যাতে তার স্কোর ছিল সর্বোচ্চ (১৫.১০০)।এছাড়া সে এশিয়ান জিমন্যাস্টিকস চ্যাম্পিয়নশিপে ব্রোঞ্জ পদক জিতেছিল এবং ২০১৫ ওয়ার্ল্ড আর্টিস্টিক জিমন্যাস্টিকস চ্যাম্পিয়নশিপে পঞ্চম স্থান অর্জন করে, উভয় ছিল তার দেশের জন্য প্রথম। সে তার কম বয়সে সবচেয়ে বেশি সফলতা ও ভারতীয় প্রথম নারী জিমন্যাস্ট হিসাবে বেশি পরিচিত।

এপ্রিল ২০১৬ সালে, কর্মকার ৫২.৬৯৮ পয়েন্ট নিয়ে প্রথম ভারতীয় নারী জিমন্যাস্ট হিসাবে অলিম্পিক গেমসের জন্য যোগ্যতা অর্জন করে, যা ৫২ বছর পরে ভারতের প্রথম জিমন্যাস্টিকস প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের যোগ্যতা অর্জন। কর্মকার গোস্পোর্ট ফাউন্ডেশন কর্তৃক সমর্থিত।

প্রাথমিক জীবন

কর্মকার ১৯৯৩ ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলায় এক বাঙালি পরিবারে জন্মগ্রহন করে। তার বয়স যখন ৬ বছর, তখন থেকেই সে জিমন্যাস্টিকসের প্রশিক্ষণ নেওয়া শুরু করে। তখন থেকেই তার কোচ হিসাবে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে বিশ্বেশ্বর নন্দী।

সিনিয়র ক্যারিয়ার

২০১১

ফেব্রুয়ারি ২০১১ সালে, দীপা ভারতের ২০১১ জাতীয় গেমসে ত্রিপুরার রাজ্যের প্রতিনিধিত্ব করে। সে ফ্লোর, ভল্ট, অল রাউন্ড, ব্যালেন্স বিম ও আনইভেন বার্সা ইভেন্টে মোট পাঁচটি স্বর্ণ পদক জিতে।

২০১৪

জুলাই ২০১৪ সালে, দীপা ২০১৪ কমনওয়েলথ গেমসে মহিলাদের ভল্ট ফাইনালে ব্রোঞ্জ পদক জিতে। তার স্কোর ছিল ১৪.৩৬৬। দীপার এ জয় ছিল প্রথম ভারতীয় নারী জিমন্যাস্ট হিসাবে এবং আশিষ কুমারের পর দ্বিতীয় ভারতীয় জিমন্যাস্ট হিসাবে কমনওয়েলথ গেমসে পদক অর্জন।

২০১৫

২০১৫ সালের ৩১ আগস্ট থেকে ২ জুলাই পর্যন্ত সময়ে জাপানের হিরোসিমায় অনুষ্ঠিত আর্টিস্টিক জিমন্যাস্টিকস এশিয়ায় চ্যাম্পিয়নশিপে দীপা ব্রোঞ্জ পদক জিতেছিল, যাতে সে মহিলাদের ভিম ভল্ট ইভেন্টে ৮ম স্থানে থেকে খেলা সমাপ্ত করে।

অক্টোবর ২০১৫ সালে, দীপা কর্মকার ২০১৫ ওয়ার্ল্ড আর্টিস্টিক জিমন্যাস্টিকস চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল পর্বের জন্য যোগ্যতা অর্জন করে। বাছাইপর্বে তার স্কোর ছিল ১৪.৯০০, যা তাকে ফাইনাল পর্বের জন্য সুরক্ষিত করে। ফাইনালে দীপা ৫ম স্থানে শেষ করে এবং তার স্কোর ছিল ১৪.৬৮৩।

২০১৬

দীপা কর্মকার প্রথম ভারতীয় মহিলা জিমন্যাস্ট হিসাবে অলিম্পিক গেমসে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে, যখন সে ২০১৬ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে মহিলাদের আর্টিস্টিক বা শৈল্পিক জিমন্যাস্টিকস বিভাগের জন্য নির্বাচিত হয়েছে। দীপাই হল প্রথম ভারতীয় জিমন্যাস্ট, যে ৫২ বছর পর অলিম্পিক গেমসের জন্য নির্বাচিত হয়েছে। দীপার পূর্বে ১৯৬৪ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে একজন পুরুষ জিমন্যাস্ট জিমন্যাস্টিকস ইভেন্টের জন্য যোগ্যতা অর্জন করেছিল।

সূত্র: উইকিপিডিয়া

2.8875
মন্তব্য যোগ করুন

(ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করুন).

Enter the word
Back to top