হোম / শিক্ষা / শিশুর অধিকার / শিশু রক্ষায় আইন / শিশু সুরক্ষা : আইনি দিক
ভাগ করে নিন
ভিউজ্
  • অবস্থা সম্পাদনার জন্য উন্মুক্ত

শিশু সুরক্ষা : আইনি দিক

শিশু সুরক্ষার আইনি দিক নিয়ে কেন সচেতন থাকা দরকার তা এখানে বলা হয়েছে।

এতক্ষণ পর্যন্ত যে শোষণ অত্যাচারের কথা বলা হয়েছে সেই সমস্ত কিছু থেকে সুরক্ষার অধিকার শিশুদের রয়েছে। কিন্ত্ত এটা তখনই সম্ভব যখন আপনি শিশুর সমস্যা ও ঝুঁকির দিকগুলো জানবেন এবং আইনে সেগুলির কী সমাধান আছে, সেগুলো থেকে নিষ্কৃতি পেতে হলে কী ধরনের নীতি নেওয়া প্রয়োজন সে বিষয়ে অবগত থাকবেন। শিশুর আইনি সাহায্য ও সুরক্ষার প্রয়োজন হতে পারে। এক জন শিশুর যখন আইনি সাহায্য প্রয়োজন, তখন তাকে সেটা নিতে আমরা সাধারণত বাধা দিই। এটা ভুল।

কোনটা গুরুত্বপূর্ণ

  • নিজেকে জিজ্ঞাসা করুন --- পরিবার /পরিবেশ / সমাজ/ক্ষমতাবান গোষ্ঠীর অপমান ও তিরস্কারের ভয় কি সামাজিক ন্যায়ের চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ?

    ২০০৩ সালে কার্নাল জেলার পাঁচটি মেয়ে দু’জন নাবালক-নাবালিকার বিয়ে বন্ধ করে দিয়েছিল। পাঁচ জন সাহসী মেয়ে যখন ঠিক করল তারা বিয়ে বন্ধ করার ব্যাপারে এগিয়ে যাবে, তখন তাদের এক স্কুলশিক্ষক এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে তাদের সাহায্য করেছিলেন। যদিও বর ও বউ-এর বাড়ি থেকে তারা বহু বাধা পেয়েছিল। গ্রামের বয়স্ক মানুষরা এবং সমস্ত গ্রাম তাদের বিরুদ্ধাচারণ করেছিল। মেয়েগুলিকে হুমকি দেখানো হয়েছিল। তাদের পরিবারও বাধা দিয়েছিল। প্রথম দিকে পুলিশও কোনও রকম পদক্ষেপ করেনি এবং কাউকে গ্রেফতার করেনি। যখন প্রায় সব কিছু ব্যর্থ হতে বসেছিল তখন সেই শিক্ষক তাঁর এলাকার সংবাদমাধ্যমকে সব জানান। সংবাদপত্রে সব কিছু প্রকাশ হলে অবশেষে পুলিশ বাধ্য হয় বিয়ে বন্ধ করতে এবং অপরাধীদের গ্রেফতার করতে। সাহসী পদক্ষেপের স্বীকৃতি হিসাবে এবং ভবিষ্যতেও যাতে তারা সব রকম অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারে, সে জন্য এই পাঁচজনকে সাহসিকতার জন্য জাতীয় পুরস্কার দেওয়া হয়। এ ক্ষেত্রে স্কুলের ওই শিক্ষকের ভূমিকা ছিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাঁর সাহায্য ছাড়া ওই পাঁচটি ছোট মেয়ের পক্ষে সমাজের বিরুদ্ধে এত দূর লড়াই করা সম্ভব হত না। শিক্ষকটি শুধু তাঁর চাকরি নয়, জীবনেরও ঝুঁকি নিয়েছিলেন। কিন্তু ন্যায় ও শিশু সুরক্ষার প্রতি দায়বদ্ধতা, তাঁকে এ কাজে এগিয়ে দেয়।

  • নিম্নলিখিত এই পদক্ষেপগুলি করলে আপনি হয়তো এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার ক্ষেত্রে সহায়তা করতে পারবেন:

    • • পুলিশ বা চাইল্ড লাইনে খবর দিন।
    • • চাইল্ড লাইন যাতে শিশুটিকে আইনি সাহায্য দেয় ও তার কাউন্সিলিং করে, তা নিশ্চিত করুন।
    • • নাগরিক সমাজকে সংগঠিত করুন।
    • • শেষ উপায় হিসেবে সংবাদমাধ্যমে খবর দিন ।
    • • আইন সম্পর্কে সচেতন হন।

    মুল আইন গুলি সম্পর্কে জানা ও কোন কোন অধিকারকে তা সুরক্ষিত করে তা বোঝাটা খুবই জরুরি। আপনি শিশুটির অভিভাবক/বাবা-মা অথবা সমাজকে তখনই আইনি সাহায্য নেওয়ার কথা বলতে পারবেন যখন আপনি বিষয়টি সম্পর্কে সম্যক ভাবে জানবেন। কখনও কখনও পুলিশ ও প্রশাসনের সাহায্য পাওয়া কঠিন হয়। আইন সম্পর্কে আপনি যদি সঠিক ভাবে জানেন তা হলেই পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে পারবেন।

3.01973684211
মন্তব্য যোগ করুন

(ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করুন).

Enter the word
ন্যাভিগেশন
Back to top