ভাগ করে নিন

আরটিই-এর ইতিহাস

কী ভাবে প্রণীত হল আরটিই, তারই ইতিহাস এখানে।

সংবিধানের ২১ক অনুচ্ছেদ --- ৮৬তম সংবিধান সংশোধনী আইন, ২০০২

ডিসেম্বর ২০০২

৮৬ তম সংবিধান সংশোধনী আইন, ২০০২ অনুযায়ী সংবিধানের ২১ক অনুচ্ছেদ (অংশ ৩)-এর মাধ্যমে ৬-১৪ বছর বয়সি সকল শিশুর বিনামূল্যে বাধ্যতামূলক শিক্ষাকে মৌলিক অধিকারের মর্যাদা দেওয়া হয়েছে।

অক্টোবর, ২০০৩

ওই অনুচ্ছেদে যে ভাবে ভাবা হয়েছে তার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে প্রথম খসড়া শিশুদের বিনামূল্যে বাধ্যতামূলক শিক্ষা বিল, ২০০৩ তৈরি করা হয়। ওই বিল ২০০৩ সালের অক্টোবর মাসে ওয়েবসাইটে পোস্ট করা হয়। সাধারণ মানুষের কাছ থেকে মতামত ও পরামর্শ চাওয়া হয়।

২০০৪

সাধারণ মানুষের থেকে আসা মতামতের ভিত্তিতে বিলটির একটি সংশোধিত খসড়া তৈরি করা হয়, যার নাম বিনামূল্যে বাধ্যতামূলক শিক্ষা বিল, ২০০৪।

জুন, ২০০৫

শিক্ষা সংক্রান্ত কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা পর্ষদ শিক্ষার অধিকার বিল প্রস্তুত করে মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের কাছে পাঠায়। মন্ত্রক সেটা পাঠায় জাতীয় উপদেষ্টা পর্ষদের কাছে। পর্ষদের চেয়ারপার্সন সনিয়া গান্ধী তা প্রধানমন্ত্রীর পর্যবেক্ষণের জন্য পাঠান।

১৪ জুলাই, ২০০৬

অর্থ কমিটি এবং যোজনা কমিশন অর্থাভাবের কারণ দেখিয়ে বিলটি প্রত্যাখ্যান করে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করার জন্য একটি আদর্শ বিল রাজ্যগুলির কাছে পাঠায় (৮৬তম সংশোধনীর পর রাজ্যগুলি ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছিল, রাজ্যস্তরে এই বিল কার্যকর করার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থের অভাব রয়েছে)।

২০০৯

২০০৯ সালে শিশুর বিনামূল্যে বাধ্যতামূলক শিক্ষার অধিকার বিল, ২০০৮ সংসদের উভয় কক্ষে পাস হয়। ২০০৯ সালের আগস্ট মাসে রাষ্ট্রপতি বিলটিতে অনুমোদন দেন।

১ এপ্রিল, ২০১০

সংবিধানের ২১ ক অনুচ্ছেদ এবং আরটিই আইন কার্যকর হয়।

3.03409090909
মন্তব্য যোগ করুন

(ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করুন).

Enter the word
ন্যাভিগেশন
Back to top