ভাগ করে নিন
ভিউজ্
  • অবস্থা সম্পাদনার জন্য উন্মুক্ত

দেখভাল ও নজরদারি

এই ধরনের একটি বিশাল কর্মসূচির দেখভাল ও নজরদারি নিরঃসন্দেহে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও জরুরি একটি বিষয়।

এই ধরনের একটি বিশাল কর্মসূচির দেখভাল ও নজরদারি নিরঃসন্দেহে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও জরুরি একটি বিষয়। তাই সংশ্লিষ্ট মন্ত্রকের প্রকৃত তত্ত্বাবধান সংক্রান্ত যে ব্য‌বস্থা চালু রয়েছে তাই প্রয়োগ করা প্রয়োজন পরিচ্ছন্ন ভারত অভিযানের ক্ষেত্রেও। বিপিএল কার্ড নম্বর এবং আধারকেও পরিবার চিহ্নিত করার ক্ষেত্রে এর আওতায় নিয়ে আসতে হবে।

সুশীল সমাজের ভূমিকা

স্বচ্ছ ভারত অভিযানকে সফল করে তুলতে সুশীল নাগরিক সমাজেরও এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। কর্মসূচি রূপায়ণের ওপর নজর রেখে বরাদ্দকৃত অর্থ সঠিক ভাবে কাজে লাগানো হচ্ছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখার দায়িত্ব পালন করতে পারে সুশীল নাগরিক সমাজ।

দক্ষতা বৃদ্ধি

এই কর্মসূচি রূপায়ণের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকলের দক্ষতা বৃদ্ধির বিষয়টিও উপেক্ষিত হলে চলবে না। স্য‌ানিটেশনের কাজে দায়িত্বপ্রাপ্ত রাজ্য‌ ও কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের যথাযথ প্রশিক্ষণের জন্য‌ নামকরা আন্তজার্তিক সংস্থাগুলির সঙ্গে সমন্বয় সাধন করা যেতে পারে। আর এই প্রশিক্ষণ নেওয়ার কাজ সংশ্লিষ্ট কর্মীদের ক্ষেত্রে বাধ্য‌তামূলক করতে হবে। জাতীয় গ্রামোন্নয়ন সংস্থা যে ভাবে গঠন করা হয়েছে, ঠিক সেই পথ অনুসরণ করে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রকের উচিত জল ও স্য‌ানিটেশন সম্পর্কিত একটি জাতীয় স্তরের সংস্থা গড়ে তোলা। এই সংস্থার কাজ হবে সংশ্লিষ্ট কর্মীদের দক্ষ করে তুলতে প্রশিক্ষণ দেওয়ার। এই ধরনের একটি প্রস্তাব ও পরামর্শ দেওয়া হয়েছে ২০১২-২০১৭ সালের দ্বাদশ পরিকল্পনাকালের গৃহস্থালির জল ও স্য‌ানিটেশন সম্পর্কিত কার্যনির্বাহী গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে।

রাজ্য‌ সরকারগুলির সঙ্গে একযোগে স্য‌ানিটেশনের সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য‌ে পৌঁছনোর উদ্য‌োগ ও প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। স্য‌ানিটেশন সংক্রান্ত সুযোগ সুবিধার প্রসার, পরিচালন ও ব্য‌বস্থাপনের ক্ষেত্রে সরকারি, বেসরকারি এবং অন্য‌ান্য‌ সংস্থার সঙ্গে অংশীদারিত্ব গড়ে তোলারও উদ্য‌োগ নেওয়া হয়েছে। আগামী ২০১৯ সালের মধ্য‌ে সার্বিক স্য‌ানিটেশনের লক্ষ্য‌ে পৌঁছতে সরকারের প্রয়োজন সমাজের সর্বস্তরের মানুষের সহযোগিতা ও সমর্থন। এ ছাড়াও কর্পোরেট সোশাল রেসপন্সিবিলিটর পরিধির মধ্য‌ে থেকে বড় বড় শিল্পোদ্য‌োগের সংস্থাগুলিরও উচিত এই কাজকে একটি চ্য‌ালেঞ্জ হিসাবে গ্রহণ করে এগিয়ে আসা। সিএসআরের আওতায় যে তহবিল রয়েছে তা সদ্ব্যবহারের মাধ্য‌মে পর্যাপ্ত মাত্রায় শ্রমশক্তি ও অন্য‌ান্য‌ সমর্থন নিয়ে ২০১৯ সালের মধ্য‌ে স্বচ্ছ ভারত গড়ে তোলার লক্ষ্য‌ের বাস্তবায়নে এগিয়ে আসতে হবে কর্পোরেট সংস্থাগুলিকে।

(লেখক যোজনা কমিশনের যুগ্ম উপদেষ্টা)

সূত্র : যোজনা, জানুয়ারি ২০১৫

Email- knp.pathak@gmail.com

2.94382022472
মন্তব্য যোগ করুন

(ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করুন).

Enter the word
ন্যাভিগেশন
Back to top