ভাগ করে নিন
ভিউজ্
  • অবস্থা সম্পাদনার জন্য উন্মুক্ত

বার্ধক্যে শারীরিক অবস্থা

কী ধরনের অসুস্থতা বাঁ শারীরিক অবস্থার সম্মুখীন হন বয়স্ক মানুষরা তা এখানে বোঝানো হয়েছে।

বার্ধক্যের সঙ্গে সঙ্গে কী কী রোগ এবং পরিস্থিতির সন্মুখীন হন প্রবীণরা?

বয়স্কদের শারীরিক সমস্যা শরীরের যে কোনও অঙ্গকে প্রভাবিত করতে পারে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই সংশ্লিষ্ট অঙ্গের কার্যক্ষমতা কমে যায় বা সেই অঙ্গটির ক্ষয় হয়। প্রবীণদের যে সব শারীরিক অবস্থার সম্মুখীন হতে হয়, অঙ্গব্যবস্থার ভিত্তিতে তার একটা তালিকা দেওয়া হল ---

  • ১। মাসকিউলোস্কেলেটল : অস্টিওআর্থারাইটিস (ক্ষয়ের কারণে হাড়ের সংযোগস্থলে ব্যথা), অস্টিওপোরোসিস (হাড়ের ক্ষয়), গাউট, পেশির ভর হ্রাস, হাড় ভাঙা
  • ২। হরমোন সংক্রান্ত : ডায়াবেটিস (রক্তে গ্লুকোজের নিয়ন্ত্রণ হ্রাস), মেনোপজ, থাইরয়েডের ত্রুটিপূর্ণ ক্রিয়া, রক্তে উচ্চ মাত্রায় কোলস্টেরল, পরিপাক শক্তি কমে যাওয়া
  • ৩। নিউরোলজিক : ডিমেনসিয়া (অ্যালজাইমার বা অন্য ধরনের কিছু), পার্কিনসনস ডিজিজ, স্ট্রোক, দুর্বল দৃষ্টিশক্তি, কানে কম শোনা এবং ভারসাম্যের সমস্যা
  • ৪। দর্শন সংক্রান্ত : ম্যাকুলার ডিজেনারেশন, গ্লুকোমা, ছানি, ডায়াবেটিস ও হাইপারটেশন সংক্রান্ত চোখের সমস্যা
  • ৫। কার্ডিওভ্যাস্কুলার ডিজিজ: হার্ট অ্যাটাক, কনজেসটিভ হার্ট ফেলিওর, অনিয়মিত হৃদস্পন্দন, উচ্চ রক্তচাপ, (হাইপারটেনশন), অথেরোস্ক্লেরোসিস (রক্ত পরিবহণতন্ত্র সরু এবং শক্ত হয়ে যাওয়া), পেরিফেরাল ভাস্কুলার ডিজিজ বা পেরিফেরাল আর্টারি ডিজিজ (রক্ত পরিবহণতন্ত্র সরু হয়ে যাওয়ার কারণে কম রক্ত প্রবাহ)
  • ৬। ফুসফুস : ক্রনিক অবস্ট্রাক্টিভ পালমোনারি ডিজিজ (সিওপিডি), ফুসফুসের গ্রহণক্ষমতা কমে যাওয়া
  • ৭। কিডনি : দীর্ঘকালীন হাইপারটেনশন বা ডায়াবেটিসের কারণে কিডনির কার্যকারিতা কমে যাওয়া (কিডনি বা মূত্রাশয়ের রোগ)
  • ৮। চুল এবং ত্বক : চুল পড়ে যাওয়া, ত্বক শুকিয়ে যাওয়া এবং চুলকানি, সংক্রমণ
  • ৯। ক্যান্সার : প্রস্টেট, কোলন, ফুসফুস, স্তন, চামড়া, মূত্রাশয়, ডিম্বাশয়, মস্তিষ্ক, অগ্ন্যাশয় -- মাত্র কয়েকটির নাম করা হল
  • ১০। অস্থি মজ্জা এবং প্রতিরোধ ক্ষমতা: যথেষ্ট পরিমাণ রক্তকোষ তৈরিতে অক্ষমতা (রক্তাল্পতা, মাইলোডাইসপ্যাসিয়া)
  • ১১। গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল: পেটে ঘা, ডাইভারটিকিউলোসিস (কোলোনের দেওয়ালে ছোট ছোট পকেট তৈরি হওয়া), সংক্রমণ থেকে কোলোন প্রদাহ অর্কলাইটিস এবং ইস্কেমিক (কম রক্ত প্রবাহ), গিলতে অসুবিধা (ডিসফাগিয়া), কোষ্ঠকাঠিন্য, অর্শ এবং বারবার পায়খানা।
  • ১২। প্রস্রাব সংক্রান্ত : বারবার প্রস্রাব, প্রস্রাব করার সময় অসুবিধা এবং প্রস্রাব করতে কষ্ট
  • ১৩। মুখ এবং দাঁত : মাড়ির রোগ, মুখ শুকনো, দাঁত পড়ে যাওয়া, দাঁতের গঠন আলগা
  • ১৪। সংক্রমণ : মূত্রনালীর সংক্রমণ, নিউমোনিয়া, দাদ, ত্বকের সংক্রমণ, কোলনে সংক্রমণ (কোলাইটিস)
  • ১৫। মানসিক: বিষণ্নতা, উদ্বেগ, ঘুমের ব্যাঘাত, অনিদ্রা
  • ১৬। সাধারণ সমস্যা : ক্লান্তি, ভুলে যাওয়ার প্রবণতা, ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া, ক্ষুধামন্দ, ওজন কমে যাওয়া এবং পড়ে যাওয়া।
2.88888888889
মন্তব্য যোগ করুন

(ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করুন).

Enter the word
ন্যাভিগেশন
Back to top