ভাগ করে নিন
ভিউজ্
  • অবস্থা সম্পাদনার জন্য উন্মুক্ত

ডিজিটাল ইন্ডিয়া

কার্যক্রমটি হল ভারতবর্ষকে একটি বৈদ্যুতিনভাবে সক্ষম এবং জ্ঞানমূলক অর্থনীতিতে পরিবর্তীত করার লক্ষ্যে ভারত সরকারের একটি প্রারম্ভিক কার্যক্রম।

ভারতে ই-গভর্ন্যান্সের প্রচলনটি 90 সালের মধ্যভাগে নাগরিক-কেন্দ্রীক পরিষেবাগুলির উপর গুরুত্ব সব একটি বিস্তৃত বিভাগীয় অ্যাপ্লিকেশনগুলির জন্য একটি বৃহত্তর পরিমাপ গ্রহণ করে। পরবর্তীকালে, বহু রাজ্য/UTসমূহ বিভিন্ন প্রকার ই-গভর্ন্যান্স প্রকল্প শুরু করে। যদিও এই প্রকার ই-গভর্ন্যান্স প্রকল্পগুলি নাগরিক-কেন্দ্রীক ছিল, সেগুলি আকাঙ্খিত প্রভাবের তুলনায় নিম্নবর্তী ফলাফল সৃষ্টি করতে সক্ষম হয়েছিল। 2006 সারে ভারত সরকার ন্যাশানাল ই-গভর্ন্যান্স প্ল্যান (NeGP) প্রচলিত করেছিল। বিভিন্ন বিষয়কে আচ্ছাদিত করে 31টি মিশন মোড প্রকল্প শুরু হয়েছিল। দেশব্যাপী বহু সংখ্যক ই-গভর্ন্যান্স প্রকল্পের সফল বাস্তবায়ন স্বত্ত্বেও, সামগ্রিকভাবে ই-গভর্ন্যান্স আকাঙ্খিত প্রভাবটি সৃষ্টি করতে এবং সেগুলির উদ্দেশ্যগুলি পূরণে সক্ষম হয়নি ।

এই প্রকার অনুভূত হয় যে দেশে ই-গভর্ন্যান্স নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে বৃদ্ধি অন্তর্ভুক্ত প্রচারের উপর, যেটি বৈদ্যুতিন পরিষেবা, উত্পাদন, যন্ত্রাদি এবং কর্মনিযুক্তির সুযোগ আচ্ছাদিত করে, আরও অধিক জোর প্রদান করা প্রয়োজন। অতিরিক্তভাবে, দেশে বৈদ্যুতিন উত্পাদনকে শক্তিবর্ধিত করা প্রয়োজন।

তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে জন পরিষেবাসমূহের সামগ্রিক ইকোসিস্টেমের পরিবর্তনের উদ্দেশ্যে, ভারত সরকার প্রচলিত করেছে ভারতবর্ষকে একটি বৈদ্যুতিনভাবে সক্ষম সমাজ এবং জ্ঞানভিত্তিক অর্থনীতিতে পরিবর্তীত করার কল্পদৃশ্যটি সহ।

উপস্থাপনা

ভারতের ই-গভর্ন্যান্সভিত্তিক উদ্যোগগুলি 1990-এর মাঝামাঝি সময় থেকে নাগরিক-কেন্দ্রীক পরিষেবাগুলির উপর গুরুত্ব আরোপ সহ বিস্তীর্ণ ক্ষেত্রভিত্তিক প্রয়োগগুলির উদ্দেশ্যে একটি বিস্তৃত আকৃতি গ্রহণ করে। সরকারের গুরুত্বপূর্ণ ICT উদ্যোগগুলির মধ্যে, রেল ব্যবস্থায় কমপিউটারের ব্যবহার, জমির নথির ক্ষেত্রে কমপিউটারের ব্যবহার ইত্যাদি একই সঙ্গে কয়েকটি বৃহত প্রকল্প অন্তর্ভুক্ত ছিল, যেগুলি প্রধানতভাবে তথ্য ব্যবস্থার উপরেই দৃষ্টি নিবদ্ধ রেখেছিল। পরবর্তী কালে, নাগরিকদের প্রতি বৈদ্যুতিন পরিষেবা প্রদানের লক্ষ্যে বহু রাজ্যই উচ্চাশাপূর্ণ ই-গভর্ন্যান্স প্রকল্প শুরু করেছিল।

যদিও এই ই-গভর্ন্যান্স প্রকল্পগুলি ছিল নাগরিক-কেন্দ্রীক, সেগুলির সীমাবদ্ধ বৈশিষ্ট্যের কারণে প্রত্যাশিতের তুলনায় সেগুলি কম প্রভাব বিস্তারে সক্ষম হয়েছিল। বিচ্ছিন্ন এবং কম আদান-প্রদানমূলক সিস্টেমগুলি বৃহত শূন্যস্থান সৃষ্টি করেছিল যেগুলি সামগ্রিক প্রশাসনিক ব্যবস্থায় ই-গভর্ন্যান্সের সফল আত্মকরণে বাধার সৃষ্টি করছিল। সেগুলি আরোও অধিকভাবে সংযুক্ত প্রসাশনিক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার জন্য পরিষ্কারভাবে উপযুক্ত স্থানগুলিত পরিকাঠামো সংস্থাপনের প্রয়োজনীয়তা, আন্তর্পরিচালনভিত্তিক বিষয়গুলির মোকাবিলার উদ্দেশ্যে একটি আরও অধিক সামগ্রিক পরিকল্পনা এবং বাস্তবায়নের প্রয়োজনীয়তার প্রতি নির্দেশ করে।

ই-ক্রান্তি : ন্যাশনাল ই-গভর্ন্যান্স প্ল্যান 2.0

সালে ন্যাশনার ই-গভর্ন্যান্স প্ল্যান নামক জাতিয় স্তরের ই-গভর্ন্যান্স কার্যক্রমটির উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছিল। সেই সময় ন্যাশানাল ই-গভর্ন্যান্স প্ল্যানের অধীনে, একটি বিস্তীর্ণ ব্যপ্তির বিষয়সমূহ, যেমন কৃষি, ভূমি বিষয়ক নথিপত্রাদি, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, পাসপোর্ট, পুলিশ, ন্যায়ালয়, পৌরসভাসমূহ, বাণিজ্য করসমূহ, কোষাগারগুলি ইত্যাদির মত 31টি মিশয় মোড প্রকল্প বিদ্যমান ছিল। 24টি মিশন মোড প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়েছে এবং পরিলক্ষিত পরিষেবাসমূহের সম্পূর্ণ অথবা আংশিক সরবরাহ শুরু করেছে।

জাতিয় ই-গভর্ন্যান্স পরিকল্পনার অক্ষমতাগুলি, যেটি সরকারি অ্যাপ্লিকেশন এবং তথ্যভান্ডারগুলির মধ্যে সমন্বয়ের অভাব, সরকারি প্রক্রিয়ার পুনর্গঠনের নিম্নবর্তী স্তর, মোবাইল, ক্লাউড ইত্যাদির মত সাম্প্রতিককালে উদ্ভব হওয়া প্রযুক্তিগুলির সুবিধা গ্রহণের সুযোগ ইত্যাদিকে অন্তর্ভুক্ত করে, বিবেচনা করে ভারত সরকার সম্প্রতিক কালে, "সরকারের পরিবর্তনের উদ্দেশ্যে ই-সরাকারের পরিবর্তন", এই কল্পদৃশ্যটি সহ ই-ক্রান্তি কার্যক্রমের প্রতি অনুমোদন প্রদান করে।

বর্তমান প্রকল্পগুলি, যেগুলিকে পুনরুজ্জীবিত করা হচ্ছে, ছাড়াও সকল নতুন এবং প্রচলিত ই-গভর্ন্যান্স প্রকল্পগুলিকে এখন থেকে ই-ক্রান্তির, 'ট্রান্সফর্মেশন অ্যান্ড নট ট্রান্সলেশন', 'ইন্টিগ্রেটেড সার্ভিসেস অ্যান্ড নট ইন্ডিভিজুয়াল সার্ভিসেস', 'গভর্নমেন্ট প্রসেস রিইঞ্জিনিয়ারিং (GPR) টুবি ম্যান্ডেটরি ইন এভরি MMP', 'ICT ইন্ফ্রাস্ট্রাকচার অন ডিমান্ড', 'ক্লাউড মাই ডিফল্ট', 'মোবাইল ফার্স্ট', 'ফাস্ট ট্র্যাকিং অ্যাপ্রুভালস', 'ম্যান্ডেটিং স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড প্রোটকল', 'ল্যাঙ্গুয়েজ লোকালাইজেশন', 'ন্যাশনাল GIS (জিও-স্যাসিয়াল ইনফরমেশন সিস্টেম', 'সিকিউরিটি অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ডাটা প্রিজার্ভেশন' নামক প্রধান নীতিগুলিকে অনুসরণ করতে হবে।

মিশন মোড প্রকল্পের পোর্টফোলিটি 31টি MMP থেকে বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হয়ে 44টি হয়েছে। মহিলা এবং শিশু বিকাশ, সামাজিক সুবিধাসমূহ, আর্থিক অন্তর্ভুক্তি, শহরভিত্তিক গভর্ন্যান্স, ইভাষা ইত্যাদি নামে বহু সংখ্যক সামাজিক ক্ষেত্রভিত্তিক প্রকল্প ই-ক্রান্তির অধীনে নতুন MMP হিসাবে সংযোজিত হয়েছে।

ডিজিটাল ইন্ডিয়ার লক্ষণীয় ক্ষেত্র

ডিজিটাল ইন্ডিয়া কার্যক্রমটি তিনটি প্রধান লক্ষণীয় ক্ষেত্রের উপর কেন্দ্রীভূত

প্রত্যেক নাগরিকের প্রতি একটি মূল অত্যাবশ্যকীয় পন্য স্বরূপ বৈদ্যুতিন পরিকাঠামো

চাহিদার ভিত্তিতে গভর্ন্যান্স এবং পরিষেবাসমূহ

নাগরিকবৃন্দের বৈদ্যুতিন (ডিজিটাল) সক্ষমতা

প্রত্যেক নাগরিকের প্রতি একটি অত্যাবশ্যকীয় পন্য স্বরূপ বৈদ্যুতিন পরিকাঠামো

  • নাগরিকবৃন্দের প্রতি পরিষেবা প্রদানের উদ্দেশ্যে একটি মূল অত্যাবশ্যকীয় পন্য স্বরূপ উচ্চ গতিসম্পন্ন ইন্টারনেটের উপলব্ধতা
  • প্রত্যেক নাগরিকের প্রতি বৈদ্যুতিন পরিচিতি, যেটি অনন্য, জীবদ্দশাভিত্তিক, অনলাইন এবং প্রত্যায়নযোগ্য, গ্রথিত করণের উদ্দেশ্যে আঁতুড় ঘর।
  • বৈদ্যুতিন এবং আর্থিক ক্ষেত্রে অংশগ্রহণে নাগরিকবৃন্দকে সক্ষম করার জন্য মোবাইল ফোন এবং ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সক্ষম
  • একটি কমোন সার্ভিস সেন্টারের প্রতি সহজ নাগাল
  • একটি জনসাধারণের ক্লাউডে আদান-প্রদানযোগ্য ব্যক্তিগত স্থান
  • নিরাপদ এবং সুরক্ষিত সাইবার-স্পেস

চাহিদাভিত্তিক প্রশাসন এবং পরিষেবাসমূহ

  • বিভাগ অথবা অধিক্ষেত্রগুলিতে নিরবচ্ছিন্নভাবে সমন্বিত পরিষেবাগুলি
  • অনলাইন এবং মোবাইল প্ল্যাটফর্মগুলি থেকে প্রকৃত সময়ে উপলব্ধ পরিষেবাসমূহ
  • সকল নাগরিকবৃন্দের অধিকারগুলি ক্লাউডে স্থানান্তরিত এবং উপলব্ধ হবে।
  • ব্যবসা সম্পাদন করার সুবিধার উন্নয়নের উদ্দেশ্যে বৈদ্যুতিনভাবে পরিবর্তীত পরিষেবাসমূহ
  • আর্থিক লেনদেনগুলিকে বৈদ্যুতিন এবং নগদবিহীন করা
  • সিদ্ধান্ত গ্রহণ সহায়ক ব্যবস্থা এবং বিকাশের উদ্দেশ্যে জিওস্প্যাসিয়াল ইনফর্মেশন সিস্টেম(GIS)-এর সুবিধাটির ব্যবহার করা

নাগরিকবৃন্দের বৈদ্যুতিন (ডিজিটাল) সক্ষমতা

  • সার্ব্বজনীন বৈদ্যুতিন স্বাক্ষরতা
  • সার্ব্বজনীনভাবে নাগালযোগ্য বৈদ্যুতিন সংস্থানসমূহ
  • ভারতীয় ভাষাগুলিতে উপলব্ধ বৈদ্যুতিন সংস্থান/পরিষেবাসমূহ
  • অংশগ্রহণমূলক প্রশাসনের জন্য সহযোগিতামূলক বৈদ্যুতিন প্ল্যাটফর্ম
  • নাগরিকদের শারীরিকভাবে সরকারি নথি/শংসাপত্রসমূহ জনা দেওয়ার প্রয়োজন নাই

কল্পদৃশ্য ক্ষেত্র 1: প্রত্যেক নাগরিকের প্রতি একটি অত্যাবশ্যকীয় উপাদান স্বরূপ বৈদ্যুতিন পরিকাঠামো

একটি উত্তম পরিষেবা প্রাপ্ত জাতির একটি পূর্বশর্ত হল একটি উত্তম সংযুক্ত জাতি। ভারতে দূরতম গ্রামটি একবার ব্রডব্যান্ড এবং উচ্চ গতি সম্পন্ন ইন্টারনেটের মাধ্যমে বৈদ্যুতিনভাবে সংযুক্ত হলে, প্রত্যেক নাগরিকের প্রতি বৈদ্যুতিন প্রশাসন প্রদান করা, পরিলক্ষিত সামাজিক সুবিধাসমূহ প্রদান করা, এবং আর্থিক অন্তর্ভুক্তি বাস্তবিকভাবে অর্জন করা সম্ভব হবে। ডিজিটাল ইন্ডিয়ার কল্পদৃশ্যটি যে প্রধান ক্ষেত্রগুলির উপর কেন্দ্রীভূত সেগলির মধ্যে একটি হল প্রত্যেক নাগরিকের প্রতি একটি অত্যাবশ্যকীয় উপাদানস্বরূপ বৈদ্যুতিন পরিকাঠামো

বিভিন্ন পরিষেবাসমূহের অনলাইন সরবরাহের প্রতি সুবিধা প্রদানের উদ্দেশ্যে একটি মূল অন্তর্নিহিত উপযোগিতা হিসাবে উচ্চ গতি সম্পন্ন ইন্টারনেট হল এই কল্পদৃশ্যের একটি প্রধান উপাদান। বৈদ্যুতিন পরিচিতি, আর্থিক অন্তর্ভুক্তি এবং সাধারণ পরিষেবা কেন্দ্রগুলির সহজ উপলব্ধতা নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে সক্ষমকারী পরিকাঠামো স্থাপনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। নাগরিকদের প্রতি "বৈদ্যুতিন লকার" প্রদানের প্রস্তাবও করা হয়েছে, যেগুলি পাবলিক ক্লাউডে আদান-প্রদান যোগ্য একটি ব্যক্তিগত স্থান হবে, যেখানে অনলাইন নাগালের উদ্দেশ্যে সরকারি বিভাগ এবং সংস্থাগুলির দ্বারা প্রদত্ত নথিগুলি সংরক্ষিত করা যাবে। সাইবার স্থানটিকে নিরাপদ এবং সুরক্ষিত করা নিশ্চিত করার পরিকল্পনাও গ্রহণ করা হচ্ছে।

একটি মূল অত্যাবশ্যকীয় উপাদান হিসাবে উচ্চ গতি সম্পন্ন ইন্টারনেট

ইনফর্মেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন টেকনলজিস (ICT)-এর সম্ভাবনা শুধুমাত্র দেশের বৃহত বৈদ্যুতিন বিভাজিকাটির সংযোজনের(ICTগুলির প্রতি সহজ এবং কার্যকরী নাগালপ্রাপ্ততার ভিত্তিতে) ক্ষেত্রেই নয়, অর্থনীতি, কর্মনিযুক্তি এবং উত্পাদানশীলতার ক্ষেত্রে ইতিবাচক সংযোজনের ক্ষেত্রেও বিদ্যমান।

নাগালের মধ্যে ব্যয়যুক্ত, আস্থাজনক এবং প্রতিযোগিতামূলক একটি পন্থার মাধ্যমে ICT পরিকাঠামো, অপটিকাল ফাইবার, এবং ওয়্যারলেস সংযুক্ততার প্রযুক্তির দ্বারা প্রদত্ত সর্বশেষ-মাইলের সংযুক্ততা বিকাশের উদ্দেশ্যে দেশের দৈর্ঘ্য এবং প্রস্থ বরাবর উচ্চ গতি সম্পন্ন ইন্টারনেট সংযুক্ততা প্রদানের উপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে।

পদক্ষেপসমূহের পরিকল্পনা এবং সময়রেখাগুলি হল নিম্নরূপ:

দৃষ্টি নিবদ্ধতার অঞ্চল

উদ্দিষ্ট ফলাফল

গ্রামীন ক্ষেত্রগুলির জন্য ব্রডব্যান্ড

2016-17-এর মধ্যে 2,50,000 গ্রাম পঞ্চায়েতের(GP)আচ্ছাদন

শহরভিত্তিক অঞ্চলগুলির জন্য ব্রডব্যান্ড

পরিষেবা সরবরাহের জন্য ভার্চুয়াল নেটওয়ার্ক পরিচালকগণ;
নতুন শহরভিত্তিক জনবসতি এবং বাড়িগুলির ক্ষেত্রে যোগাযোগের পরিকাঠামো বাধ্যতামূলক

জাতিয় তথ্য পরিকাঠামো

অধিকতর সক্ষমতা এবং সম্মলিত সহযোগী অতিক্রিয়ার উদ্দেশ্যে ন্যাশনাল ই-গভর্ন্যান্স প্ল্যান(NeGP)-এর অধীনে গঠিত সকল মূল ICT পরিকাঠামোর সমন্বয় সাধন;
মার্চ 2017-এর মধ্যে দেশব্যাপী আচ্ছাদন

সকলের জন্য মোবাইল সংযোগের সুবিধা

নেটওয়ার্কে অধিকতর অন্তর্ভুক্তি;
2018-এর মধ্যে 55,619টি অনাচ্ছাদিত গ্রামের আচ্ছাদন

জাতিয় গ্রামীণ ইন্টারনেট মিশনের অধীনে জনসাধারণের জন্য ইন্টারনেটের প্রতি নাগালের কার্যক্রম

কমোন সার্ভিসেস সেন্টার্স(CSCs)-এর মাধ্যমে 2016-17-এর মধ্যে 2,50,000 GP-এর আচ্ছাদন;
2015-16-এর মধ্যে 1,50,000 ডাকঘরের একাধিক-পরিষেবা প্রদান কেন্দ্র হিসাবে পুনর্প্রতিষ্ঠা করা

বৈদ্যুতিন পরিচিতি গ্রথিত করার আঁতুড় ঘর

আদর্শ পরিচিত হল এমন একটি যেটি হল, অনন্য, এককভাবে সক্ষম, নকল এবং দ্বিতীয় নথিগুলিকে অননুমোদিত করার মত যথেষ্ট শক্তিশালী, একটি কম ব্যয়সাপেক্ষ পন্থার মাধ্যমে সহজে এবং বৈদ্যুতিনভবে প্রত্যয়নযোগ্য, এবং জীবনব্যাপী।

আধার, ভারত সরকারের পক্ষে ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন অথরিটি অফ ইন্ডিয়া(UIDAI)-এর দ্বারা প্রদত্ত 12 সংখ্যার একটি নম্বর এই প্রয়োজনীয়তাগুলি পূরণ করে। প্রয়োজনীয়ভাবেই এটি হল একটি কাগজবিহীন অনলাইন যেকোন সময়-যেকোন স্থানের ভিত্তিতে একজন নাগরিকের প্রতি তাঁর সম্পূর্ণ জীবদ্দশার জন্য প্রদত্ত পরিচিতি। প্রত্যয়নের যন্ত্রসমূহের সাহায্যে, যেগুলি UIDAI-এর কেন্দ্রীয় পরিচিতি সংগ্রহালয়ের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করে, অনলাইনে পরিচিতির যাচাইকরণ করা হয়, এবং "নিজেকে যিনি বলে দাবিকারী ব্যক্তিটি কী তিনিই?" এই প্রাথমিক জিজ্ঞাস্যটির প্রতি UIDAI-এর নিকট উপলব্ধ জাতিতত্বভিত্তিক এবং জীবমিতিভিত্তিক তথ্যের ভিত্তিতে 'হ্যাঁ' অথবা 'না'-এর মাধ্যমে প্রত্যুত্তর প্রদান করবে। যেকোন অ্যাপ্লিকেশনের দ্বারাই, যেটির একজন নাগরিকের পরিচিতি প্রতিষ্টার প্রয়োজন হয় এবং/অথবা অ্যাপ্লিকেশনটির দ্বারা বসবাসকারীদের প্রতি পরিষেবা/সুবিধাসমূহ/অধিকারসমূহ প্রদানের উদ্দেশ্যে আধার ব্যবহার করা যাবে।

DeitY, অক্টোব 2014-তে বিভিন্ন অংশীদারদের নিয়ে মোবাইল ফোনগুলিকে কিভাবে ব্যক্তিবিশেষের পরিচিতির বৈদ্যুতিন প্রত্যয়নে যন্ত্র হিসাবে ব্যবহার করা যায় সেই সম্পর্কে বিভিন্ন বিষয়ের উপর একটি জটিল চিন্তাভাবনা করার উদ্দেশ্যে একটি আলোচনামূলক কর্মশালা পরিচালনা করেছিল। কর্মশালাটির এবং পরবর্তী আলোচনাসমূহের প্রধান ফলাফল ছিল এই প্রকার যে কোন একজন ব্যক্তি পরিচিতি প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে "বৈদ্যুতিন পরিচিত" অন্তর্নিহিত অর্থ হতে হবে স্থানান্তরযোগ্যতা। বৈদ্যুতিন পরিচিতির একটি সরঞ্জাম হিসাবে মোবাইলের ব্যবহারের জন্য মোবাইলভিত্তিক পরিচিতির তিনটি সমাধানের উদ্ভব হয়েছিল: (1) আধারের সঙ্গে মোবাইল নম্বরের সংযুক্তিকরণ; (2) বৈদ্যুতিন স্বাক্ষরের সাহায্যে মোবাইল; এবং (3) স্বরভিত্তিক জীবমিতি সহ মোবাইল (হয় একক, অথবা মোবাইল নম্ স্বরভিত্তিক জীবমিতি সহ মোবাইল (হয় একক, অথবা মোবাইল নম্বরের সঙ্গে সংযুক্ত)। নাগরিকদের প্রতি মোবাইলের সঙ্গে সংযুক্ত জন্ম-থেকে-মৃত্যু পরিচিতির সুবিধাগুলি প্রদানের উদ্দেশ্যে সর্বাধিক সক্ষম এবং কার্যকরী সমাধানটির বাস্তবায়ন প্রক্রিয়াকরণ প্রচলিত।

মোবাইলের মাধ্যমে বৈদ্যুতিন এবং আর্থিক ক্ষেত্রে অংশগ্রহণ এবং ব্যাঙ্কিং

ভারতীয় টেলিকম ক্ষেত্র হল বিশ্বের মধ্যে সর্বাধিক দ্রুত বর্ধমান টেলিকম ক্ষেত্রে। ভারতে, বিশেষত গ্রামীন ক্ষেত্রগুলিতে, মোবাইল ফোনের সুবিশাল এবং ক্রমবর্ধমান অন্তর্গমন, বৈদ্যুতিনভাবে জন পরিষেবাগুলির প্রতি নাগালপ্রাপ্ততা এবং সেগুলি সরবরাহের একটি প্রস্তুতকৃত এবং বিস্তীর্ণ ভিত্তি প্রদান করে। মোবাইলের মাধ্যমে ডাটা-এর উপলব্ধতা ক্রমাগতভাবে জনপ্রিয়তা অর্জন করছে, এবং আজকের তারিখে, ভারতে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে প্রায় 80 শতাংশ ইন্টারনেটের নাগালপ্রাপ্ত হন মোবাইল যন্ত্রের মাধ্যমে। এটি সাধারণভাবে ই-গভর্ন্যান্স এবং বিশেষভাবে বৈদ্যুতিন-তথা-আর্থিক অন্তর্গমনের একটি উত্কৃষ্ট প্রতিশ্রুতি এবং সম্ভাবনা ধারণ করে।

মোবাইলের ক্ষেত্রে, DeitY, মোবাইল সেবা, একটি যুগান্তকারী সম্পূর্ণরূপে সরকারি মোবাইল গভর্ন্যান্স উদ্যোগ, দেশব্যাপী সরকারি বিভাগ এবং সংস্থাগুলিকে নাগরিকদের এবং ব্যবসাগুলির প্রতি মোবাইল যন্ত্রের দ্বারহা বিভিন্ন মোবাইল ভিত্তিক প্রনালীগুলির মাধ্যমে যেমন SMS, USSD, মোবাইল অ্যাপ, এবং ভয়েস/IVRS, জনপরিষেবাগুলি প্রদানে সক্ষমকারী, প্রচলিত করেছে।

আর্থিক ক্ষেত্রে, DeitY, পেগভ, সকল সরকারি বিভাগ এবং পরিষেবাগুলিকে নাগরিকদের থেকে জন পরিষেবাগুলি প্রাপ্তির বিরুদ্ধে অনলাইনে অর্থ গ্রহণের সুবিধা প্রদান করার জন্য একটি কেন্দ্রীভূত প্ল্যাটফর্ম, প্রদানের উদ্দেশ্যে NSDL ডাটাবেস ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড-এর সঙ্গে সহযোগীতার ভিত্তিতে সংযুক্ত হয়েছে। পেগভ নাগরিকদের, যাঁরা অর্থ প্রদানের বিভিন্ন জন্য প্রান্ত-থেকে-প্রান্ত লেনদেনের একটি অভিজ্ঞতা প্রদান করে।

দেশের সকল পরিবারগুলির সামগ্রিক আর্থিক অন্তর্ভুক্তি আনয়নের প্রতি সমন্বিত দৃষ্টিভঙ্গি সহ একটি জাতিয় উদ্দেশ্য হিসাবে 'প্রধানমন্ত্রী জন-ধন যোজনা'টি প্রচলিত হয়েছে। পরিকল্পনাটি পরিবার প্রতি কমপক্ষে একটি প্রাথমিক ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের দ্বারহা ব্যাঙ্কিং সুবিধাগুলির প্রতি সার্ব্বজনীন নাগাল, আর্থিক স্বাক্ষরতা, ঋণের প্রতি নাগাল, বিমা এবং অবসরকালীন ভাতার সুবিধার উপর দৃষ্টিপাত করে। এটি সকল সরকারি সুবিধাসমূহের, সুবিধাভোগকারীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের প্রতি প্রনালীকরণটির উপরেও দৃষ্টিপাত করে।

অক্টোবর 2014-তে Deity দ্বারা পরিচালিত মোবাইল পরিচিতি বিষয়ক জটিল চিন্তা-ভাবনার আলোচনার কর্মশালায় "আর্থিক অন্তর্ভুক্তির একটি সরঞ্জাম হিসাবে মোবাইল"-এর উপর একটি বিশেষ ট্র্যাকের আয়োজন করা হয়েছিল। কর্মশালা এবং পরবর্তী আলোচনাসমূহ উপস্থাপিত করে যে টেলিযোগাযোগ পরিষেবা প্রদানকারীদের দ্বারা প্রদত্ত প্রকৃত আচ্ছাদন এবং সংযুক্ততা ছাড়াও তাদের আন্তর্জালিকার বহুদূর বিস্তৃত বিতরণের দ্বারা গ্রামীন ক্ষেত্রে ব্যাঙ্কিং পরিষেবার মসৃণ কার্যকারীতার ক্ষেত্রে সম্মুখিন হওয়া, বিদ্যুতের উপলব্ধতা, নগদ পরিচালন, সুরক্ষা এবং নগদ গ্রহণ/প্রদানের পর্যাপ্ত কেন্দ্রের মত অসুবিধাগুলির মোকাবিলা করার সম্ভাবনা বিদ্যমান রয়েছে। মোবাইলগুলি আর্থিক অন্তর্ভুক্তির ক্ষেত্রে একটি প্রয়োগযোগ্য এবং কার্যকরী সম্পূরক প্রণালী হিসাবে পরিষেবা প্রদান করতে পারে।

একটি কমোন সার্ভিস সেন্টারের প্রতি সহজ নাগাল(CSC)

DeitY-এর দ্বারা গঠিত NeGP-এর অধীনে বাস্তবায়িত, CSCগুলি হল সরকারি, আর্থিক, সামাজিক এবং বেসরকারি ক্ষেত্রগুলি, কৃষি, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, বিনোদন, ব্যাঙ্কিং, বিমা, অবসরকালীন ভাতা, অত্যাবশ্যকীয় উপাদানসমূহের জন্য অর্থ প্রদান ইত্যাদি ক্ষেত্রগুলির সম্পর্কিত পরিষেবা প্রদানের উদ্দেশ্যে গ্রাম স্তরে ICT-সক্ষম পরিষেবা প্রদানের সম্মুখ স্থান (কিয়স্ক)।

CSC একটি পাবলিক-প্রাইভেট-পার্টনারশিপ (PPP) মডেলের এবং CSC পরিচালক (ভিলেজ লেভেল এন্টাপ্রিনিউয়ার অথবা VLE নামে পরিচিত), কয়েকটি জেলা নিয়ে গঠিত একটি অঞ্চলে CSC স্থাপনের উদ্দেশ্যে সার্ভিস সেন্টার এজেন্সি (SCA), এবং রাজ্যটিতে বাস্তবায়ন পরিচালনের উদ্দেশ্যে একটি স্টেট ডেসিগনেটেড এজেন্সি (SDA) দ্বারা গঠিত একটি 3-টায়ার কাঠামোর অধীনে পরিচালিত হয়। CSCগুলি, নন-IT ছাড়াও IT ভিত্তিক পরিষেবাসমূহের একটি মিশ্রণের মাধ্যমে দেশের সুদূরতম অঞ্চলগুলি গ্রামীন জনসাধারণের সুবিধার উদ্দেশ্যে সরকার এবং ব্যক্তিগত এবং সমাজভিত্তিক প্রতিষ্ঠানগুলিকে তাদের সামাজিক এবং বাণিজ্যক লক্ষ্যগুলি একরেখ করার ক্ষেত্রে সাহায্য করে।

প্রাথমিকভাবে প্রত্যেক 6টি গ্রামের জন্য একটি CSC, এই অনুপাতে 6,00,000 গ্রামে 1,00,000 CSC প্রতিষ্ঠার লক্ষ্য ছিল। আজকের তারিখে, দেশ ব্যাপী 1,37,000 টি CSC কার্যকারী। প্রস্তাবিত CSC 2.0 কার্যক্রমের অধীনে, নাগরিকদের জন্য CSC গুলির প্রতি নাগালপ্রাপ্ততা সহজতর করার উদ্দেশ্যে CSCগুলির সংখ্যা বৃদ্ধি করে 2,50,000 (সকল পঞ্চায়েতগুলিকে আচ্ছাদিত করে) হাজার করার পরিকল্পনা করা হয়েছে।

নাগরিকদের জন্য এটি কী আছে?

একটি CSC-এর প্রতি সহজ নাগালপ্রাপ্ততা ব্যতিত একজন গ্রামবাসীর জন্য বর্তমান দৃশ্যপট

  • সরকারি পরিষেবাসমূহ এবং ইন্টারনেটে অপর্যাপ্ত নাগান।

পরিবর্তিত দৃশ্যপট

  • CSC-এর মাধ্যমে ইন্টারনেট সংযুক্ততা উপলব্ধ।
  • G2C পরিষেবাসমূহ, ব্যাঙ্কিং পরিষেবাসমূহ (ঋণ অন্তর্ভুক্ত করে) এবং উপযুক্ত কৃষিভিত্তিক কার্যকলাপগুলি জানান জন্যও প্রতিবেশিভিত্তিক CSCটি হল একটি সুবিধাজনক এবং বন্ধুত্বপূর্ণ স্থান।
  • CSC-তে বহু প্রকার B2C পরিষেবাগুলিও উপলব্ধ হয়।
  • পারিবারিক সদস্যেরা উন্নততর পারিবারিক আয়ের উদ্দেশ্যে CSC-তে কমপিউটার বিষয়ক দক্ষতা অর্জন করে এবং বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণও গ্রহণ করতে পারেন।

একটি জনসাধারণের ক্লাউডে আদান-প্রদানযোগ্য ব্যক্তিগত স্থান

একটি ডিজিটাল লকারের প্রতি সহজ এবং অনুমোদন-ভিত্তি নাগাল, অর্থাত্‌ পাবলিক ক্লাউডে একটি ভাগাভাগি করার যোগ্য ব্যক্তিগত স্থান, অতি উত্তমভাবে কাগজবিহীন কার্যকলাপের প্রতি সুবিধা প্রদান করতে পারে। নাগরিকেরা বাস্তবিকভাবে নথিপত্র অথবা সেগুলি প্রতিলিপি জমা করা বিনাই, সরকারের দ্বারা প্রদত্ত বৈদ্যুতিন নথিপত্রাদি এবং শংসাপত্রসমূহ বৈদ্যুতিনভাবে সংরক্ষিত এবং বিভিন্ন সংস্থাগুলির সঙ্গে আদান-প্রদান করতে পারেন।

নাগরিকদের প্রতি ডিজিটাল লকার - একটি খেলা পরিবর্তক

বর্তমান দৃশ্যপট:

  • নাগরিকদের সরকারি পরিষেবাগুলি উপলব্ধ করার জন্য কাগজভিত্তিক নথি পত্র জমা দিতে হবে।

ডিজিটাল ইন্ডিয়া উদ্যোগটি কিভাবে প্রভাবিত করবে:

  • ভারত সরকার প্রত্যেক নাগরিকের জন্য একটি বৈদ্যুতিন ব্যক্তিগত স্থান প্রদান করবেন, অর্থাত্‌ ডিজিটাল লকার।
  • ডিজিটাল লকার' নাগরিকদের, তাঁদের সকল গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র এবং শংসাপত্রগুলিকে সুরক্ষিতভাবে সংরক্ষিত করতে সক্ষম করবে।
  • বৈদ্যুতিন নথিগুলি, জনসাধারণভিত্তিক সংস্থা অথবা অন্যান্যদের সঙ্গে বাস্তবিকভাবে জমা দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা বিহীনভাবেই আদান-প্রদান করা যেতে পারে।
  • এই প্রকার একটি 'ডিজিটাল লকার' বিশেষভাবে নাগরিস স্বাচ্ছন্দের উন্নয়ন ঘটাবে এবং জন পরিষেবা ব্যাপী কাগজবিহীন কার্যকলাপ আনয়ন করবে।
  • একটি বিপর্যয়মূলক পরিস্থিতিতে, যেমন বন্যা, ঝড়ঝঞ্ঝা, অগ্নি, ইত্যাদি, যখন নাগরিকেরা মূল নথিপ্রত্রগুলি হারিয়ে ফেলতে পারেন, তখন সরকারি অথবা বেসরকারি পরিষেবাগুলি প্রাপ্ত করার উদ্দেশ্যে বৈদ্যুতিন সংগ্রহালয়ে সংরক্ষিত নথিপত্রগুলি যেকোন সময়ে,যেকোন স্থানে তাঁদের জন্য উপলব্ধ হবে।

প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের (প্রদানকারী) জন্য তাঁদের নথিপত্রগুলি(বৈদ্যুতিন নথিপত্র) একটি মানানুগ আকারে আপলোড করার উদ্দেশ্যে ডিজিটাল লকারটিতে সংগ্রহালয়ের (বৈদ্যুতিন সংগ্রহালয়) একটি একত্রিকরণ হবে। নাগরিকদের প্রতি প্রদত্ত ব্যক্তিগত লকারটিও, এই সংগ্রহালয়গুলি থেকে নথিপত্রগুলির সরাসরি নাগালপ্রাপ্ততার জন্য লিঙ্কগুলি(নথির URI নামে পরিচিত) সংরক্ষিত করার জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম হিসাবে সেটির ভূমিকা পালন করবে। এই প্ল্যাটফর্মটি নাগরিকদের তাঁদের নথিপত্রগুলি পরিষেবা প্রদানকারীদের, যাঁরা নিজেরাও প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের থেকে জনভিত্তিক নথিগুলির সরাসরি নাগালপ্রাপ্ত হতে পারেন, সঙ্গে একটি অনুমোদিত পন্থার মাধ্যমে সুরক্ষিতভাবে আদান-প্রদান করতে সক্ষম করবে।

ক্লাউড-ভিত্তিক পরিষেবাগুলির সরবরাহ দ্রুততর করার জন্য, DeitY মেঘরাজ ক্লাউড উদ্যোগের উপস্থাপনা করেছে। এটি, ভারত সরকারের দ্বারা নির্ধারিত একটি সাধারণ রীতিগুচ্ছ, নির্দেশিকা এবং মানসমূহকে অনুসরণ করে বিদ্যমান অথবা নতুন (বর্ধিত) পরিকাঠামোগুলির উপর গঠি বহু সংখ্যাক কেন্দ্রীয় এবং রাজ্যভিত্তিক ক্লাউড অন্তর্ভুক্ত করে। DeitY, ক্লাউডভিত্তিক পরিষেবাগুলির আত্মকরণে উত্সাহ প্রদানের উদ্দেশ্যে, ""GI ক্লাউড প্রকৌশলগত নির্দেশিকা পত্র"" এবং ""GI ক্লাউড আত্মকরণ এবং রূপায়ন পথনির্দেশিকা"" নামে দুটি নীতিভিত্তিক প্রতিবেদনও প্রকাশ করেছে।

নিরাপদ এবং সুরক্ষিত সাইবার-স্পেস

সাইবারস্পেস হল এমন একটি স্থান যেখানে সকল অনলাইন সম্পদ, রীতি, পরিচিতি ইত্যাদি থাকে এবং কার্যকলাপ এবং লেন-দেন করা হয়। এটি অন্তর্নিহিত যে সাইবারস্পেসটি হবে সকল প্রতিষ্ঠান এবং ব্যবহারকারীর জন্য নিরাপদ এবং সুরক্ষিত।

প্রাতিষ্টানিক গঠন, মানুষ, প্রক্রিয়াসমূহ, প্রযুক্তি এবং সহযোগিতার একটি মিশ্রণের মাধ্যমে সাইবার স্পেসে তথ্য এবং তথ্য পরিকাঠামোর সুরক্ষা, সাইবার ভীতিগুলির প্রতিরোধ এবং মোকাবিলা করার সক্ষমতা গঠন, সাইবার ঘটনাগুলির প্রতি ভঙ্গুরতার হ্রাস এবং সেগুলির কারণে ক্ষতি নিম্নতম করার উদ্দেশ্যে যথা স্থানে জাতিয় তথ্য সুরক্ষা পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

DeitY-এর ইন্ডিয়ান কমপিউটার এমার্জেন্সি রেসপ্স টিম (ICERT/CERT-In) প্রযোজনা করে একটি সামগ্রিক "আপনার PC-কে সুরক্ষিত করুন" পোর্টাল (http://www.cert-in.org.in/secureyourpc.in/ (সূত্রটি বহিরাগত) SPC_colored_English/large/index.html) ঝুঁকি এবং ভীতিগুলির বিরুদ্ধে ব্যবহারকারীদের জন্য নির্দেশিকা এবং পদক্ষপসমূহ। অতিরিক্তভাবে, সাইবার সুরক্ষার উপর ডিজিটাল ইন্ডিয়া-এর অধীনে মূল প্রকল্পগুলির মধ্যে একটি হিসাবে নিরাপদ এবং সুরক্ষিত সাইবার স্পেস প্রদানের জন্য একটি জাতিয় সমন্বয় কেন্দ্রের প্রস্তাব করা হয়েছে।

কল্পদৃশ্য ক্ষেত্র 2: চাহিদার ভিত্তিতে গভর্ন্যন্স এবং পরিষেবাসমূহ

একটি ই-গভর্ন্যান্সের যুগ আনয়নের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন রাজ্য সরকারি এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রালয়গুলির দ্বারা বহু বছর যাবত একটি বৃহত সংখ্যক উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়ে এসেছে। জনভিত্তিক পরিষেবাগুলির সরবরাহ এবং সেগুলির নাগালপ্রাপ্ততার সরলিকরণের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন স্তরে দীর্ঘমেয়াদি প্রচেষ্টা প্রদান করা হয়েছে। সরকারি বিভাগগুলিতে কমপিউটারের ব্যবহার থেকে শুরু করে সেই উদ্যোগুলি, যেগুলি গভর্ন্যান্সের সূক্ষ্ম বিষয়গুলি যেমন নাগরিক কেন্দ্রীকতা, পরিষেবা অভিমূখীনতা এবং স্বচ্ছতা ইত্যাদিকে আচ্ছাদিত করে, পর্যন্ত ভারতে ই-গভর্ন্যান্স স্থিরভাবে বিজড়িত হয়েছে।

দেশ ব্যাপি ই-গভর্ন্যান্স উদ্যোগগুলির, সেগুলিকে একটি সংগ্রহমূলক দৃষ্টিভঙ্গিতে একত্রিত করে একটি সামগ্রিক পর্যালোচনার উদ্দেশ্যে 2006 সালে ন্যাশানাল ই-গভর্ন্যান্স প্ল্যান (NeGP)টি অনুমোদিত হয়েছিল। এই ধারণাটিকে কেন্দ্রে রেখে, সুদূরতম গ্রামগুলিতে পৌঁছানো দেশব্যাপী একটি সুবিশাল পরিকাঠামো বিকশিত হচ্ছে, এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে সহজ এবং আস্থাজনক নাগাল সক্ষম করার উদ্দেশ্যে নথিপত্রাদির বৃহদাকার বৈদ্যুতিকরণ করা হচ্ছে। চূড়ান্ত উদ্দেশ্যটি ছিল সকল সরকারি পরিষেবাগুলিকে তাঁদের পারিপার্শ্বিক স্থানটিতে, সাধারণ পরিষেবা প্রদানের কেন্দ্রগুলির মাধ্যমে সাধারণ মানুষের নাগালপ্রাপ্ত করা, এবং নাগালযোগ্য মূল্যে সাধারণ মানুষের প্রাথমিক প্রয়োজনীয়তাগুলি পূরণ করার উদ্দেশ্যে এই পরিষেবাগুলির দক্ষতা, স্বচ্ছতা, এবং বিশ্বাসযোগ্যতা নিশ্চিত করা"।

দেশের সকল নাগরিকবৃন্দ এবং অন্যান্য অংশীদার প্রতি চাহিদার ভিত্তিতে গভর্ন্যান্স এবং পরিষেবাগুলি উপলব্ধ করা নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে ছয়টি উপাদান খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

বিভাগ অথবা অধিক্ষেত্রগুলিতে নিরবচ্ছিন্নভাবে সমন্বিত পরিষেবাগুলি

কিছু প্রকার পরিষেবার প্রতি নাগাল কিছু নথিপত্র, পরিষেবা প্রদানকারী বিভাগ/অধিক্ষেত্রের বহির্ভূত কর্তৃপক্ষের অনুমোদন এবং ছাড়পত্রগুলিকেও বিজড়িত করবে। আজকের দিনের দৃষ্টি নিবদ্ধতা হল এই প্রকার পরিষেবাগুলির একক-জানালাভিত্তিক প্রদান যাতে নাগরিক এবং ব্যবসাগুলির সময় এবং সম্পর্কিত একাধিক বিভাগ অথবা অধিক্ষেত্রগুলিতে প্রচেষ্টার সাশ্রয় হয়। NeGP-এর অধীনে ই-বিজ এবং ই-ট্রেড প্রকল্পের দ্বারা এটির উদাহরণ প্রদান করা হয়েছে। সমন্বিত পরিষেবাগুলি প্রদানের উদ্দেশ্যে, DeitY ই-গভর্ন্যান্স মানসমূহ বিজ্ঞপিত করেছে। (উপলব্ধ https://egovstandards.gov.in/ (সূত্রটি বহিরাগত)).

অনলাইন এবং মোবাইল প্ল্যাটফর্মগুলি থেকে উপলব্ধ প্রকৃত সময়ের পরিষেবাসমূহ

আজকের দিনে দৃষ্টি নিবদ্ধতাটি হল ই-গভর্ন্যান্স অ্যাপ্লিকেশনগুলির এমন প্রকারে নকশাকরন যাতে সম্পর্কিত তথ্য, পরিষেবাসমূহ এবং অভিযোগ-মোকাবিলার প্রকৌশলগুলি একটি প্রকৃত সময়ের ভিত্তিতে এবং নাগালপ্রাপ্তির সকল প্রকার যন্ত্রসমূহ যেমন ডেস্কটপ কমপিউটার, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট, মোবাইল, ইত্যাদি বরাবর অনলাইনে নাগালযোগ্য হয় তার উপর।

পঞ্চায়েত স্তরে উচ্চগতি সম্পন্ন ব্রডব্যান্ড সংযুক্ততার সংস্থান প্রদান নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে, টেলিকমিউনিকেশন বিভাগ (DoT)-এর দ্বারা ন্যাশনাল অপটিকাল ফাইবার নেটওয়ার্ক (NOFN)প্রকল্পটি বাস্তাবায়নের পথে। এটির লক্ষ্য হল এই দেশের সকল পঞ্চায়েতের প্রতি গিগাবাইট ফাইবার গ্রহণের মাধ্যমে সংযুক্ততা সম্পর্কিত সমস্যাগুলির সমাধান করা।

DeitY-এর মোবাইল সেবা প্রকল্পটি হল একটি অত্যন্ত সফল প্রকল্প যেটি কেন্দ্র, রাজ্য এবং স্থানিয় স্তরে মোবাইল ভিত্তিক পরিষেবাসমূহ এবং মোবাইল অ্যাপগুলি প্রদানের উদ্দেশ্যে সকল সরকারি বিভাগ এবং সংস্থাগুলির প্রতি একটি সাধারণ জাতিয় প্ল্যাটফর্ম প্রদান করে। সারা দেশব্যাপী 1900-এর অধিক সরকারি বিভাগ এবং সংস্থাসমূহ মোবাইল সক্ষম পরিষেবাগুলির জন্য মোবাইল প্ল্যাটফর্মের ব্যবহার করে। এই উদ্যেগটি 2014 সালের জাতিসঙ্ঘের জনপরিষেবা পুরষ্কার লাভ করেছিল। মোবাইল সেবা হল, "তথ্য যুগে সম্পূর্ণ সরকারের প্রচার করা" এই শ্রেণীটির অধীনে জাতিসঙ্ঘের জনপরিষেবা পুরষ্কার(2014)-এর বিজেতা।

ইন্টারনেট এবং মোবাইল সংযুক্ততার মাধ্যমে নাগরিকবৃন্দের জীবনের পরিবর্তন

বর্তমান দৃশ্যপট:

  • ইন্টারনেট সংযুক্তির অভাবের কারণে সরকারি পরিষেবাগুলি প্রাপ্ত করার অসুবিধা।

পরিবর্তিত দৃশ্যপট:

  • অধিকারসমূহ,ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের বিস্তারিত বিবরণ ইত্যাদির পরীক্ষা করার ক্ষেত্রে মোবাইল ফোন অথবা ল্যাপটপ সহায়তা করবে।
  • ইন্টারনেটের প্রতি নাগাল এবং বৈদ্যুতিন স্বাক্ষরতা নাগরিকবৃন্দকে উন্নততর কর্ম সংস্থান এবং জীবনের উন্নীত মানের জন্য আকাঙ্খিতও করবে।।
  • ই-পুস্তকের আকারে পাঠ্যপুস্তকগুলিকে উপলব্ধ করা হবে যেগুলি ল্যাপটপে ডাউনলোড করে নেওয়া যাবে।
  • নাগরিকবৃন্দ ইন্টারনেটের মাধ্যমে সফ্টওয়্যার অ্যাপ্লিকেশনগুলি নাগালপ্রাপ্ত হয়ে বাড়ি থেকেই সরকারি এবং বেসরকারি পরিষেবাগুলি গ্রহণ করতে পারবেন।

সকল নাগরিকবৃন্দের অধিকারগুলি ক্লাউডে স্থানান্তরিত এবং উপলব্ধ হবে।

 

অ্যাপ্লিকেশনগুলির নকশাকরণ এবং হোস্টিং-এর কালে ক্লাউড প্রযুক্তির দ্বারা প্রদত্ত নমনীয়তা, সাবলীলতা, ব্যয় সাশ্রয়যোগ্য এবং স্বচ্চতার বিবেচনা করা প্রয়োজন। ক্লাউড কমপিউটিং-এর সুবিধাগুলির ব্যবহার এবং কর্ম নিযুক্ত করারা উদ্দেশ্যে, ভারত সরকার একটি উচ্চাকাঙ্খাপূর্ণ উদ্যোগ - "GI ক্লাউড" উপস্থাপিত করেছন, যেটির নাম দেওয়া হয়েছে "মেঘরাজ"। এই উদ্যোগটির দৃষ্টি নিবদ্ধতা হল, সরকারের ICTভিত্তিক ব্যয় সাশ্রয়ের কালে, দেশে ই-পরিষেবাগুলির সরবরাহ দ্রুত গতি সম্পন্ন করার উপর।

ক্লাউড প্ল্যাটফর্মটি সকল সম্ভাব্য অধিকারগুলির অনলাইন সংগ্রহালয় ধারণ করে, সেটির দ্বারা সত্যের একটি একক সংস্থান প্রদান করতে পারে। এটি জন বিতরণ ব্যবস্থা, BPL ভিত্তিক অধিকারসমূহ, সামাজিক ক্ষেত্রভিত্তিক সুবিধাসমূহ, LPG এবং অন্যান্য ভর্তুকিসমূহ, ইত্যা্দির মত অঞ্চলগুলিকে অন্তর্ভূক্ত করে। প্ল্যাটফর্মটি বিভিন্ন সরকারি স্কীমের অধীনে স্বয়ংক্রিয় নিবন্ধীকরণ, রক্ষণাবেক্ষণ এবং নাগরিক অধিকারসমূহের সরবরাহ সমর্থ করতে পারে। এটি এই প্রকার অধিকারসমূহের যেকোন স্থানে, যেকোন সময়ের ভিত্তিতে সরবরাহ সক্ষম করবে। একটি নতুন স্থানে অধিগমনকারী একজন নাগরিক তাঁর অধিকারগুলি হারাবেন না এবং তাঁকে সুবিধাগুলি প্রাপ্ত করার জন্য নতুনভাবে নিবন্ধীকরণ এবং নথিপত্র জমা করার দীর্খ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে যেতে হবে না। এই পরিকল্পনাটি সমগ্র দেশব্যাপী নাগরিক অধিকারসমূহ প্রচলিত রাখাটি নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে স্থানান্তরণযোগ্যতার বিষয়টি মোকাবিলার জন্য ক্লাউড প্ল্যাটফর্মের সুবিধা গ্রহণের উদ্দেশ্যে।

অক্টোবর 2014 তে ইউনিভার্সার অ্যাকাউন্ট নম্বর (UAN)-এর মাধ্যমে প্রভিডেন্ট ফান্ডের স্থানান্তর প্রক্রিয়ার প্রচলনের মাধ্যমে একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইল-ফলক পর্যন্ত পৌঁছানো সম্ভব হয়েছে। বর্তমানে কর্মচারীদের স্থান পরিবর্তেনের সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের ফভিডেন্ট ফান্ডে থাকা তহবিলটি সম্পর্কে আর উদ্ভিঘ্ন হওয়ার প্রয়োজন নাই।

ব্যবসা সম্পাদন করার সুবিধার উন্নয়নের উদ্দেশ্যে বৈদ্যুতিনভাবে পরিবর্তীত পরিষেবাসমূহ

একটি ব্যবসা শুরু করা, গঠনভিত্তিক অনুমতি পত্র সমপর্কিত কার্যকলাপ, বিদ্যুত সংযোগ পাওয়া, সম্পত্তি নিবন্ধীকরণ, ঋণ পাওয়া, পুঁজি নিবেশকারীদের সুরক্ষা প্রদান করা, কর প্রদান করা, সীমানার বাইরের অঞ্চলে বাণিজ্য করা, চুক্তি কার্যকরী করা, কপর্দকশূন্যতার সমাধান করা এবং অন্যান্য অনুমোদনসমূহ হল বিভিন্ন প্রকার অভিজ্ঞতাগুলি যেগুলি সংজ্ঞাতিয় করে যে একটি দেশে ব্যবসা করা কতটা সহজ অথবা কঠিন। দেশে বাণিজ্য করার সুবিধাগুলির উন্নতির উদ্দেশ্যে বাণিজ্যের জন্য প্রয়োজনীয় সরকারি পরিষেবাগুলিকে বৈদ্যুতিনভাবে পরিবর্তীত করা হবে।

সাম্প্রতিকতম সরঞ্জাম এবং প্রযুক্তিসমূহের ব্যবহারের দ্বারা NeGP-এর অধীনে বর্তমানে বিদ্যমান MMPগুলির শক্তি বর্ধন করা হবে:

  • ই-ব্যবসা প্রকল্পটি একটি বাণিজ্যিক উদ্যোগ স্থাপনের উদ্দেশ্যে সকল ব্যবসায়ী এবং পুঁজি নিবেশকারীর প্রতি একটি একক-জানালা প্রকৌশলের মাধ্যমে বিভিন্ন কেন্দ্রীয় এবং রাজ্যভিত্তিক বিগাভ/সংস্থাসমূহ বরাবর সমন্বিত পরিষেবাসমূহ প্রদান করে।
  • MCA21' MMPগুলির লক্ষ্য হল আইনানুগ প্রয়োজনীয়তাগুলির জন্য বৈদ্যুতিন পরিষেবাগুলি এবং এবং অন্যান্য ব্যবসা সম্পর্কিত পরিষেবাগুলি প্রদান করা।
  • ব্যবসায়ীদের এই সকল সংস্থাগুলির থেকে অনলাইন পরিষেবাগুলি প্রাপ্ত করতে সমর্থ করার উদ্দেশযে বৈদেশিক বাণিজ্যে বিজড়িত বিভিন্ন য়ামক/সুবিধাপ্রদানকারী সংস্থাগুলি দ্বারা প্রদত্ত কার্যকরী এবং দক্ষ পরিষেবাসমুহের সরবরাহের বিষয়ে প্রচারের মাধ্যমে ই-বাণিজ্য MMP ভারতে বৈদেশিক বাণিজ্যের প্রতি সুবিধা প্রদান করে।

আর্থিক লেনদেনগুলিকে বৈদ্যুতিন এবং নগদবিহীন করা

বৈদ্যুতিন অর্থ প্রদান এবং তহবিল স্থানান্তরণের, মধ্যবর্তী পক্ষগুলির, যাঁরা অন্য কোনভাবে ব্যবস্থাটি বিপর্যস্ত করতেও পারেন, বিজড়িত হওয়া ব্যতীতই অভিষ্ট সুবিধাভোগকারীর প্রত পরিলক্ষিত এবং প্রত্যক্ষ প্রদানের সুবিধাটি আছে। সদৃশভাবে, নির্দিষ্ট কিছু জন পরিষেবার ক্ষেত্রে পারিশ্রমিক প্রদানের অনলাইন প্রকৌশলটি নাগরিকদের প্রতি অর্থ প্রদানের স্বচ্ছ, বন্ধুত্বপূর্ণ এবং কর্মকুশল প্রনালীগুলি প্রদান করে। একটি নির্দিষ্ট সীমার ঊর্ধ্বে সকল আর্থিক লেনদেনসমূহকে বৈদ্যুতিন এবং নগদবিহীন করা হবে।

DeitY, দেশের সকল সরকারি বিভাগ এবং সংস্থাগুলির জন্য কেন্দ্রীয় অর্থ প্রদানের গেটওয়ে হিসাবে পেগভ-এর সৃষ্টি করেছে। NSDL ডাটা ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড (NMDL), ন্যাশনাল সিকিউরিটিস ডিপসিটরি লিমিটেড (NSDL)-এর সম্পূর্ণ মালিকাধীন একটি সহযোগী সংস্থার দ্বারা এটির পরিচালন এবং রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়ে থাকে।

কর্মদক্ষ পরিষেবা সরবরাহের জন্য তথ্যভান্ডার বরাবর তথ্য শেয়ারিং সক্ষম করার উদ্দেশ্যে পেগভ ইন্ডিয়া, ন্যাশানাল এবং স্টেট সার্ভিস ডেলিভারি গেটওয়ের (NSDG এবং SSDG)-এর সঙ্গে এবং মোবাইল সেবার অধীনে মোবাইর সার্ভিস ডেলিভারি গেটওয়ে (MSDG)-এর সঙ্গেও সুরক্ষিতভাবে সমন্বিত হয়েছে। নাগরিকেরা, নেট ব্যাঙ্কিং, ক্রেডিট কার্ড, ডেবিট কার্ড, প্রিপেড/ক্যাশ কার্ড/ওয়ালেট, ইমিডিয়েট পেমেন্ট সার্ভিস(IMPS) এবং মোবাইল ওয়ালেটের মত ই-পেমেন্ট-এর গুচ্ছগুলির মধ্যে থেকে একটি নির্বাচন করতে পারেন।

সিদ্ধান্ত গ্রহণ সহায়ক ব্যবস্থা এবং বিকাশের উদ্দেশ্যে জিওস্প্যাসিয়াল ইনফর্মেশন সিস্টেম(GIS)-এর সুবিধাটির ব্যবহার করা

ই-গভর্ন্যান্স অ্যাপ্লিকেশনগুলিতে GIS প্রযুক্তির উপযুক্ত ব্যবহারের দ্বারা একটি উত্তম পন্থার মাধ্যমে বিভিন্ন প্রকার সরকারি পরিষেবাসমূহ প্রদান করা যেতে পারে। ই-গভর্ন্যান্স অ্যাপ্লিকেশনগুলির জন্য একটি GIS প্ল্যাটফর্ম গঠনের উদ্দেশ্যে বহু সংখ্যক প্রতিষ্টান যেমন, সার্ভে অফ ইন্ডিয়া, ন্যাশনান ইনফর্ম্যাটিক্স সেন্টার (NIC), NRSA এবং মিনিস্ট্রি অফ আর্থ সায়েন্সেস (MoES)-এর নিকট উপলব্ধ ভূ-মহাকাশভিত্তিক তথ্যের সমন্বয়ের উদ্দেশ্যে ন্যাশানাল জিওস্প্যাসিয়াল ইনফর্মেশন সিস্টেম (NGIS) বাস্তবায়নের পথে।

এই GIS প্ল্যাটফর্মটির, বিভিন্ন মিশন মোড প্রকল্পগুলির এবং অন্যান্য ই-গভর্ন্যান্স উদ্যোগগুলির জন্য একটি পরিষেবা হিসাবে সুবিধা গ্রহণ করা হবে। প্রকল্পগুলির বাস্তবিক অগ্রসরতা, দুর্যোগ নিয়ন্ত্রণ এবং জন নিরাপত্তাভিত্তিক সংস্থাগুলির প্রয়োজনীয়তা পর্যবেক্ষণের জন্যও NGIS-এর ব্যবহার হতে পারে।

কল্পদৃশ্য ক্ষেত্র 3: নাগরিকদের বৈদ্যুতিনভাবে সক্ষমকরণ

বৈদ্যুতিন সংযুক্ততা হল একটি উত্কৃষ্ট সমকারক। জাতিগত এবং আর্থসামাজিক ক্ষেত্রগুলি বরাবর, ভারতীয়রা ক্রমবর্ধমানভাবে নিজেদের মোবাইল ফোন এবং কমপিউটার নেটওয়ার্কে আরোহণ করার মাধ্যমে একে অপরের সঙ্গে সংযুক্ত এবং যোগাযোগ করছেন। ডিজিটার ইন্ডিয়া কার্যক্রমটি, বৈদ্যুতিন স্বাক্ষরতা, বৈদ্যুতিন সংস্থান এবং সহযোগিতামূলক বিদ্যুতিন মঞ্চগুলির উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করার দ্বারা নিজেই ভারতবর্ষকে একটি বৈদ্যুতিনভাবে সক্ষম সমাজে পরিণত করার প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছে। এটি ভারতীয় ভাষাগুলিতে সার্ব্বজনীন বৈদ্যুতিন স্বাক্ষরতা এবং বৈদ্যুতিন সংস্থান/পরিষেবাসমহূএর উপরেও গুরুত্ব আরোপ করে থাকে।

সার্ব্বজনীন বৈদ্যুতিন স্বাক্ষরতা

ডিজিটাল স্বাক্ষরতা, ডিজিটাল ইন্ডিয়ার মত সম্ভাবনাটির প্রকৃত এবং সম্পূর্ণ সুবিধাগুলি ব্যবহারের উদ্দেশ্যে একটি ব্যক্তিভিত্তিক স্তরে সর্বোচ্চ গুরুত্ব ধারণ করে। এটি নাগরিকদের, তাঁদের নিজেদের সক্ষম করার উদ্দেশ্যে বৈদ্যুতিন প্রযুক্তিসমূহের সম্পূর্ণ ব্যবহার করার সক্ষমতা প্রদান করে। এটি তাঁদের আরও উত্তম জীবনধারণ করার এবং আর্থিকভাবে সুরক্ষিত হওয়ার সুযোগ পেতে সাহায্য করে।

আজকের দিনে দৃষ্টি নিবদ্ধতাটি হল প্রত্যেক পরিবারে কমপক্ষে একজন ব্যক্তির ই-স্বাক্ষর হওয়ার উপর। কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকারগুলির দ্বারা স্থাপিত মূল ICT পরিকাঠামোগুলি, যেমন CSCগুলি, দেশের সুদূরতম অঞ্চলগুলির প্রতি বৈদ্যুতিন স্বাক্ষরতা প্রসারণের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। যাতে দেশের সকল পঞ্চায়েতগুলি যাতে উচ্চ-গতি সম্পন্ন সংযুক্ততা প্রাপ্ত হতে পারে সেটি নিশ্চিত করার জন্য ডিপার্টমেন্ট অফ টেলিকম (DoT), ন্যাশালান অপটিকাল ফাইবার নেটওয়ার্ক (NOFN) স্থাপনের উদ্দেশ্যে, ভারত ব্রডব্যান্ড নেটওয়ার্ক লিমিটেড (BBNL)-এর প্রতিষ্ঠা করেছে। BBNL, দেশের সকল 2,50,000টি গ্রাম পঞ্চায়েতে শেষ হওয়া, সকল অংশীদারদের দ্বারা তথ্য মহাসড়ক হিসাবে ব্যবহৃতব্য 100 Mbps লিঙ্ক প্রদানকারী অপটিকাল ফাইবার কেবলগুলি স্থাপন করবে যাতে সারা দেশব্যাপী সকল গ্রামগুলিতে বৈদ্যুতিন অন্তর্ভুক্তি পৌঁছানো নিশ্চিত করা যায়। এটি সকল স্থানিয় প্রতিষ্ঠানসমূহ, যেমন পঞ্চায়েত কার্যালয়, বিদ্যালয়গুলি, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, পাঠাগার ইত্যাদির বৈদ্যুতিনকরণ এবং সংযুক্ততা নিশ্চিত করবে। জাতিয় বৈদ্যুতিন স্বাক্ষরতা মিশনের মাধ্যমে ই-স্বাক্ষরতার লক্ষ্যটি পূরণের ক্ষেত্রে সহায়তার জন্য শিল্পটিও অগ্রসর হয়েছে।

ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ ইলেক্ট্রেনিক্স অ্যান্ড ইনফর্মেশন টেকনলজি (NIELIT), DeitY-এর অধীনস্থ একটি স্বশাসিত সংস্থা, সেই সকল পাঠক্রমগুলির উপর, যেগুলি একজন ব্যক্তিকে কমপিউটার ব্যবস্থার মাধ্যমে ই-গভর্ন্যান্সভিত্তিক লেনদেন এবং ই-মেল, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, ইত্যাদির মত অন্যান্য প্রাথমিক কার্যকলাপগুলি সম্পাদান করতে উপযুক্ত করবে, প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্যে দেশব্যাপী 5000 টিরও অধিক সুবিধাকরণ কেন্দ্র চিহ্নিত করেছে। NIELIT, পাঠক্রমগুলি যুগ্মভাবে আয়োজন করার এবং বৈদ্যুতিন স্বাক্ষরতার উপর অনলাইন পরীক্ষা পরিচালনের উদ্দেশ্যে শিল্প অংশীদারদের সঙ্গে MoU ও স্বাক্ষর করেছে।

সার্ব্বজনীনভাবে নাগালযোগ্য বৈদ্যুতিন সংস্থানসমূহ

বৈদ্যুতিন সংস্থানগুলি তখনই সত্য সত্যই সার্ব্বজনীনভাবে নাগালপ্রাপ্ত হয় যখন সেগুলি সর্বস্থানে এবং সর্বব্যক্তির দ্বারা সহজেই উপলব্ধ এবং সঞ্চালনযোগ্য হয়। উন্মুক্ত সংস্থানগুলির বিস্তীর্ণভাবে এবং অব্যয়সাপেক্ষভাবে উপলব্ধ হওয়ার এবং বিস্তীর্ণভাবে ব্যবহারযোগ্যতা এবং প্রয়োজনের ভিত্তিত পরিবর্তমযোগ্যতার উপকারীতা বিদ্যমান থাকে। এই প্রকারে সৃষ্ট অথবা বাস্তবায়িত বৈদ্যুতিন সংস্থানগুলি, মালিকানাভিত্তিকভাবে সৃষ্ট সংস্থানগুলির তুলনায় সর্বস্থানে উপলব্ধ হতে পারে। মালিক বিভাগ এবং সংস্থাসমূহের দায়িত্ব হল তাঁদের বৈদ্যুতিন সংস্থানগুলির উচ্চ গুণমানযুক্ত হওয়া নিশ্চিত করা যাতে নাগালপ্রাপ্ততা এবং প্রয়োজনীয়ভাবে পরিবর্তনের ক্ষেত্রে সমস্যযুক্ত না হয়।

সার্ব্বজনীনভাবে নাগালযোগ্য বৈদ্যুতিন সংস্থানসমূহ:নাগরিকদের প্রতি যেকোন সময়ে, যেকোন স্থান থেকে সরকারি নথিগুলি নাগালপ্রাপ্ত করা!

বর্তমান দৃশ্যপট:

  • সরকারি নথিগুলি সহজে নাগাল প্রাপ্ত হয় না।

পরিবর্তিত দৃশ্যপট:

  • নাগরিক সম্পর্কিক নথিপত্রাদি বৈদ্যুতিনভাবে উপলব্ধ করা হবে।
  • সরকারি বিভাগগুলি সমান্তরাল সরকারি সংস্থাগুলির দ্বারা প্রদত্ত নথিপত্রগুলির নাগাল পেতে পারে।
  • নাগরিকদের প্রতি প্রদত্ত নথিপত্রাদি, একটি মানানুগ আকারে যেটি একটি অনুমোদিত সত্তার সঙ্গে আদান প্রদান করা যেতে পারে, তাঁদের নিকট যেকোন স্থানে যেকোন সময়ে উপলব্ধ হবে।
  • নথিপত্রগুলি একই ভাবে স্থানিয় ভাষাতেও উপলব্ধ হবে।
  • নথিপত্রগুলি নাগরিকবৃন্দে প্রতি ওয়েব পোর্টাল এবং মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনগুলির মাধ্যমে নাগালপ্রাপ্ত হবে।

ন্যাশানাল ডাটা শেয়ারিং অ্যান্ড অ্যাক্সেসেবিলিটি পলিসি (NDSAP)-এর প্রয়োজন সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলির দ্বারা তাদের তথ্যগুচ্ছের একটি উন্মুক্ত আকারে স্বপ্রনোদিতভাবে প্রকাশ করা। ভারতে NDSAP-এর রূপায়নটি সম্পাদিত করা হচ্ছে ভারতের জন্য উন্মুক্ত সরকারি মঞ্চের মাধ্যমে NIC, DietY-এর একটি সংস্থার দ্বারা (http://data.gov.in (সূত্রটি বহিরাগত)।

বৈদ্যুতিন সংস্থাগুলি ব্যবহারকারীদের যন্ত্রগুলিতে, যেগুলি হতে পারে মোবাইল ফোন, ট্যাবলেট, কমপিউটার, অথবা অন্যান্য যন্ত্রসমূহ, প্রদানের পন্থাগুলির মতোই উপযোগী। এই যন্ত্রগুলি, যখন বৈদ্যুতিন সংস্থানগুলি উপলব্ধ সাইটগুলির সঙ্গে সংযোগ স্থাপনে সক্ষম হয়, সেখানে হতে পারে সহায়তার বৈচিত্রপূর্ণ মানগুলির ভিত্তিতে এবং বিষয়বস্তুর বৈচিত্রপূর্ণ শৈলীর উপস্থাপনা এবং আকৃতিসমূহকে সহায়তা নাও করতে পারে। এই প্রকার ক্ষেত্রগলিতে, বিষয়বস্তুগুলি সকল প্রকার যন্ত্রে সম্পূর্ণ সঠিকভাবে প্রদত্ত নাও হতে পারে। সরকারি তথ্য এবং প্রয়োজনীয় শৈলী পত্রগুলির প্রয়োগ এবং অন্যান্য সার্ভার প্রান্তিক সমাধানসমূহের জন্য DeitY-এর দ্বারা বিজ্ঞপিত মানগুলির প্রতি মান্যতা প্রদান মালিক বিভাগসমূহ এবং সংস্থাগুলিকে তাঁদের বৈদ্যুতিন সংস্থানগুলির প্রতি সার্ব্বজনীন নাগালপ্রাপ্ততার এই বিষয়টি অর্জনে সাহায্য করতে পারে।

ডিজিটাল ইন্ডিয়া কার্যক্রমের অধীনে, সরকারও বিশেষ প্রয়োজনীয়তা সহ নাগরিকদের, যেমন যাঁরা দর্শন এবং শ্রবনের ক্ষেত্রে বাধাপ্রাপ্ত (যেটি আংশিক অথবা সম্পূর্ণ হতে পারে), শিক্ষণভিত্তিক অথবা বোধভিত্তিক অক্ষমতাযুক্ত, শারীরিক অক্ষমতাযুক্ত যেটি সর্বত্র নাগালপ্রাপ্ত করার যন্ত্রসমূহ যেমন ফোন, ট্যাবলেট এবং কমপিউটারগুলির পরিচালনে বাধা প্রদান করে, বৈদ্যুতিন সংস্থাগুলির প্রতি নাগাল প্রদানের জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

সকল নথিপত্র/সংশাপত্রসমূহ ক্লাউডে উপলব্ধ হবে

নাগরিকবৃন্দের নিকট কোন প্রকার সরকারি নথিপত্র অথবা সংশাপত্র প্রদানের জন্য অনুরোধ করা যাবে না, যেগুলি ইতিমধ্যেই কোন সরসারি বিভাগ/প্রতিষ্ঠানের নিকট বাস্তবিকভাবে উপলব্ধ আছে। সকল প্রকার বৈদ্যুতিন নথিপত্রাদির স্থানান্তরযোগ্যতা নিশ্চিত করতে হবে। উপদাহরণ স্বরূপ, শিক্ষামূলক প্রতিষ্ঠানগুলির তাদের সকল প্রকার ডিগ্রী এবং সংশাপত্রগুলির বৈদ্যুতিনকরণ এবং উপযুক্ত নাগালপ্রাপ্ততার রীতি সহ সেগুলির কোন অনলাইন সংগ্রহালয়ে সংরক্ষণ নিশ্চিত করা প্রয়োজন। কোন নাগরিককে, কোন একটি আবেদন পত্র পূরণের সময়ে, তাঁর শিক্ষাভিত্তিক নথিপত্র/সংশাপত্র জমা দেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হবেনা তবে তাঁকে অনলাইন সংগ্রহালয়ে সংরক্ষিত তাঁর শিক্ষাভিত্তিক সংশাপত্রের বিস্তারিত বিবরণটি প্রদান করতে হবে যেটি সম্পর্কিত সংস্থাটি নাগরিকটির দ্বারা প্রদত্ত পয়েন্টারটির ব্যবহারের মাধ্যমে দেখতে পারবে। এই সকল নথি/সংশাপত্রের প্রকৃত সত্যের একটি মাত্র সংস্থান সূত্র উপলব্ধ করার উদ্দেশ্যে এই প্রকার সরকার দ্বারা প্রদত্ত নথিপত্রাদি/সংশাপত্রের সংগ্রহালয়গুলি একটি ক্লাউড প্ল্যাটফর্মে হোস্ট করতে হবে। তথ্যগুলির মধ্যে বৈদ্যুতিনভাবে স্বাক্ষরিত শিক্ষামূলক সংশাপত্র, ভূমি সম্পর্কিত নথিপত্রাদি, ড্রাইভিং লাইসেন্স, অনুমোদন পত্র ইত্যাদির মতো শ্রেণীগুলি অন্তর্ভুক্ত হতে পারে। অনুরোধকারী বিভাগগুলি অথবা ব্যবহারকারীদের প্রতি ক্লাউডে উপলব্ধ বৈদ্যুতিন সংগ্রহালয়ের প্রতি প্রত্যয়িত নাগাল প্রদান করা হতে পারে।

ভারতীয় ভাষাগুলিতে উপলব্ধ বৈদ্যুতিন সংস্থান/পরিষেবাসমূহ

দেশের বিভিন্ন অংশের লিখিত এবং কথিত ভাষার ভিত্তিতে ভারতে একটি উল্লেখযোগ্য বৈচিত্রতা বিরাজ করে। এখানে 22টি অফিসিয়াল ভাষা এবং 12টি হরফ বিদ্যমান আছে। ইংরাজী ভাষা সম্পর্কে জ্ঞান দেশের জনসংখ্যার একটি অতি ক্ষুদ্র অংশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ। অবশিষ্টরা প্রায়শই বৈদ্যুতিন সংস্থানসমূহের, যেগুলি প্রধানত ইংরাজী ভিত্তিক, নাগালপ্রাপ্ত অথবা বোধপ্রাপ্ত হন না।

DeitY, ভাষাভিত্তিক কোন প্রকার বাধাবিহীনভাবে মানব-যন্ত্র আদান-প্রদানে সুবিধাকরণ, একাধিক ভাষাভিত্তিক জ্ঞানের সংস্থান সৃষ্টি এবং সেটির প্রতি নাগালপ্রাপ্ততা, এবং উদ্ভাবনামূলক ব্যবহারকারীর উপাদন এবং পরিষেবাসমূহের বিকাশের ক্ষেত্রে সেগুলির সমন্বয়ের উদ্দেশ্যে তথ্য প্রক্রিয়াকরণের সরঞ্জাম এবং পন্থা বিকাশের জন্য টেকনলজি ডেভলপমেন্ট ফর ইন্ডিয়ান ল্যাঙ্গুয়েজেস (TDIL) কার্যক্রমের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। কার্যক্রমটি, বর্তমান এবং ভবিষ্যত ভাষা প্রযুক্তি মানগুলিতে ভারতীয় ভাষাগুলির পর্যাপ্ত প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে ISO, UNICODE, ওয়ার্ল্ড-ওয়াইড-ওয়েব কনসোর্টিয়াম(W3C) এবং ব্যুরো অফ ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ডস (BIS)-এর মত আন্তর্জাতিক এবং দেশিয় মানানুগকরণ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সক্রিয় অংশগ্রহণ মাধ্যমে ভাষা প্রযুক্তি মানানুগকরণের প্রচারও করে।

DeitY, MMP এবং অন্যান্য সরকারি অ্যাপ্লিকেশনগুলি অধীনে অ্যাপ্লিকেশনগুলির স্থানীয়করণে সহায়তার উদ্দেশ্যে লোকালাইজেশন প্রোজেক্টস ম্যানেজমেন্ট ফ্রেমওয়ার্ক(LPMF)-এরও উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। DeitY ইংরাজীতে কথা না বলা অধিকাংশ ভারতীয়ের প্রতি স্থানীয় ভাষাগুলিতে বৈদ্যুতিন বিষয়বস্তুগুলির বিকাশ এবং ছড়িয়ে দেওয়ার উদ্দেশ্যে ই-ভাষা নামে নতুন মিশন মোড প্রোজেক্টও নির্ধারণ করছে। নাগালপ্রাপ্ততার মান অনুসারে অক্ষমব্যক্তিদের প্রতি সহায়ক বিষয়বস্তু এবং ব্যবস্থাসমূহের বিকাশ ঘটানো হচ্ছে।

অংশগ্রহণমূলক প্রশাসনের জন্য সহযোগিতামূলক বৈদ্যুতিন প্ল্যাটফর্ম

ঐতিহ্যগতভাবে, বৈদ্যুতিন প্ল্যাটফর্মগুলি তথ্য বিস্তারকরণ এবং ব্যবহারকারীদের প্রতি পরিষেবাসমূহের প্রদানের জন্য ব্যবহৃত হয়েছে। এই প্ল্যাটফর্মগুলির মাধ্যমে, সরকারি ক্লাউড নাগরিকদের সঙ্গে যোগাযোগ প্রতিষ্ঠীত করে, যদিও এটি প্রধানত এক-মূখী ছিল। ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মগুলি, প্রযুক্তি ক্ষেত্রে বিকাশের থেকে প্রয়োজনীয় জোর প্রদানের দ্বারা, সময়পযোগী হয়েছে এবং বর্তমানে সরকারি বিভাগগুলিকে নাগরিকদের সঙ্গে কার্যকরী দ্বিমূখী যোগাযোগ এবং আদান-প্রদানমূলক কার্যকলাপে সহায়তা করে। অধিকতর সহযোগী প্ল্যাটফর্মগুলি ব্যবহারকারীদের থেকে অধিকতর অংশগ্রহণ সুবিধাযুক্ত করে। প্রতি মুহুর্তে নাগরিকবৃন্দের নিকট যাওয়া অপেক্ষা, সরকার ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মগুলির, যেগুলি অংশগ্রহণমূলক গভর্ন্যান্সের প্রতি সুবিধা প্রদান করে, মাধ্যমে সারাদিনই তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ বজায় রাখতে পারে।

একটি উদ্ভাবনামূলক সমাধানে পৌঁছানো, সরকারের প্রতি প্রস্তাবনা প্রদান করা, গভর্ন্যান্সের উপর মতামত প্রদান করা, সরকার/নীতিসমূহ/উদ্যোগসমূহের মান নির্দারণ করা, এবং কাঙ্খিত ফলাফলগুলি প্রাপ্তির জন্য সরকারের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করার উদ্দেশ্য বিভিন্ন প্রকার সমস্যাসমূহের উপর আলোচনার উদ্দেশ্যে প্ল্যাটফর্মটি একটি প্রকৌশল প্রদান করবে।

ডিজিটাল ইন্ডিয়া কার্যক্রমের দৃষ্টিভঙ্গি এবং পদ্ধতিগুলি হল

  1. সকল মন্ত্রালয়/বিভাগ/রাজ্যগুলি ভারত সরকারের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত সাধারণ এবং সহায়ক ICT পরিকাঠামোগুলির পূর্ণ সদ্ব্যবহার করবে। নিজে DeitY-ও মান নির্ধারন এবং নীতিভিত্তিক নির্দেশনাগুলির বিকাশ করবে, প্রযুক্তিভিত্তিক সহায়তা প্রদান করবে, সক্ষমতা গঠন, গবেষণা এবং উন্নয়ন ইত্যাদি করবে।
  2. বিদ্যমান/প্রচলিত ই-গভর্ন্যান্স উদ্যোগগুলিকে ডিজিটাল ইন্ডিয়া-এর নীতিগুলির সঙ্গে সমরেখ বা মানানসই করার উদ্দেশ্যে সেগুলিকে উপযুক্তভাবে পুনরুজ্জীবিত করা হবে। সুযোগ বিস্তৃতিকরণ, প্রক্রিয়ার পুনর্গঠন, সমন্বিত এবং আন্তর্পরিচালনযোগ্য সিস্টেমের ব্যবহার এবং নাগরিকদের কাছে সরকারি পরিষেবাগুলি সরবরাহের উদ্দেশ্যে ক্লাউড এবং মোবাইলের মত নতুন উদ্ভাবিত প্রযুক্তিগুলি পৌঁছে দেওয়া।
  3. দেশের রাজ্যের নির্দিষ্ট আর্থনৈতিক ও সামাজিক প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী অতিরিক্ত প্রকল্প অন্তর্ভুক্তি করার পুরোপুরি স্বাধীনতা রাজ্যকেই দেওয়া হবে।
  4. নাগরিক কেন্দ্রীক পরিষেবা অভিমূখীনতা, বিভিন্ন ই-গভর্ন্যান্স অ্যাপ্লিকেশনগুলির আন্তর্পরিচালন এবং বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে একটি বিকেন্দ্রীভূত মডেলের আত্মকরণের কালে ICT পরিকাঠামো ও ICT সংস্থাগুলির সর্বোত্কৃষ্ট ব্যবহার নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে একটি কেন্দ্রীভূত উদ্যোগের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় পরিধি পর্যন্ত ই-গভর্ন্যান্সের প্রচার সংঘটিত হবে।
  5. সাফল্যগুলি চিহ্নিত করা এবং প্রয়োজনীয় উপাদনকরণ এবং নির্দিষ্ট ক্ষেত্র বিশেষে প্রয়োজনভিত্তিক পরিবর্তন সহ সক্রিয়ভাবে সেগুলির নকলকরণ উন্নীত করা হবে।
  6. পর্যাপ্ত পরিচালন এবং প্রকৌশলগত নিয়ন্ত্রণ দ্বারা ই-গভর্ন্যান্সের প্রকল্পগুলির বাস্তবায়েনর উদ্দেশ্য সম্ভাব্য সকল ক্ষেত্রেই সরকারি বেসরকারি অংশীদারিত্ব কাম্য হবে।
  7. পরিচয় নির্ধারণ ও প্রমাণীকরণ করতে এবং নানা সরকারি সুবিধার লাভ ওঠাতে অনন্য ID-র ব্যবহার উন্নীত করা হবে।
  8. কেন্দ্র এবং রাজ্য স্তরের সকল সরকারি বিভাগগুলির জন্য IT-ভিত্তিক সহায়তা শক্তিশালী করার উদ্দেশ্যে NIC-র পুনর্গঠন করা হবে।
  9. কমপক্ষে 10 প্রধান মন্ত্রালয়ে চীফ ইনফরমেশন অফিসার্স (CIO)-এর পদগুলি সৃষ্টি করা হবে যাতে বিভিন্ন ই-গভর্ন্যান্স প্রকল্পগুলির নকশাকরণ, বিকাশ এবং বাস্তবায়ন দ্রুততর হয়। CIO পদগুলি সম্পর্কিত মন্ত্রালয়গুলিতে IT-র বিষয়ে কর্তৃত্বমূলক সক্ষমতা সহ সচিব/যুগ্ম সচিব স্তরের হবে।

সূত্র: ডাব্লুডাব্লুডাব্লু.ডিজিটালইন্ডিয়া.গভ.ইন

2.90625
তারকাগুলির ওপর ঘোরান এবং তারপর মূল্যাঙ্কন করতে ক্লিক করুন.
মন্তব্য যোগ করুন

(ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করুন).

Enter the word
ন্যাভিগেশন
Back to top