হোম / শিক্ষা / জ্ঞান বিজ্ঞান / শতবর্ষ পেরিয়ে উপমহাদেশের সিনেমা / অস্কার, ভারতীয় ছবি ও সত্যজিৎ রায়
ভাগ করে নিন
ভিউজ্
  • অবস্থা সম্পাদনার জন্য উন্মুক্ত

অস্কার, ভারতীয় ছবি ও সত্যজিৎ রায়

তিন তিন বার মনোনয়ন পেলেও কোনও ভারতীয় ছবি অস্কার জিতে নিতে পারেনি। কিন্তু অস্কার উপেক্ষা করতে পারেনি বিশ্বশ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রকার সত্যজিৎ রায়কে।

১৯৫৭ সালের ‘মাদার ইন্ডিয়া’ ছবিটি ভারতের প্রথম চলচ্চিত্র হিসেবে শ্রেষ্ঠ বিদেশি ভাষার চলচ্চিত্র বিভাগে অস্কার মনোনয়ন পায়। মেহবুব খান পরিচালিত এই চলচ্চিত্রে মূল ভূমিকায় অভিনয় করেন নার্গিস, সুনীল দত্ত, রাজেন্দ্র কুমার ও রাজ কুমার। ছবিটি মূলত একই পরিচালকের অওরাত (১৯৪০) ছবির রিমেক। ১৯৮৮ সালে মিরা নায়ার পরিচালিত ‘সালাম বোম্বে’ ছবিটি দ্বিতীয় ভারতীয় চলচ্চিত্র হিসাবে অস্কার মনোনয়ন লাভ করে। ছবিটি কান চলচ্চিত্র উৎসবে সম্মানজনক ক্যামেরা ডি’ অর পুরষ্কার জিতে নেয়। ২০০১ সালে আশুতোষ গোয়ারিকার পরিচালিত ও আমির খান অভিনীত ‘লগান’ ছবিটি বিশ্ববাসীকে চমকে দেয়। ‘টাইম’ ম্যাগাজিন লগানকে বিশ্বের সব চেয়ে সেরা চলচ্চিত্রের একটি বলে আখ্যায়িত করে। তৃতীয় ভারতীয় ছবি হিসেবে অস্কার মনোনয়ন লাভ করে লগান। তিন তিন বার মনোনয়ন পেলেও এখন পর্যন্ত কোনও ভারতীয় ছবি অস্কার জিতে নিতে পারেনি।

তবে প্রথম ভারতীয় চলচ্চিত্রকার হিসেবে সত্যজিৎ রায় (১৯২১-১৯৯২) বিশ্ব চলচ্চিত্রের সব চেয়ে সম্মানজনক পুরষ্কার ‘অস্কার’ জিতে নেন।

পরিচালনাসহ চলচ্চিত্রের বিভিন্ন শাখায় অসামান্য অবদানের জন্য ১৯৯১ সালে অস্কার কমিটি তাঁকে আজীবন সম্মাননা পুরষ্কার প্রদান করে। তাঁর নির্মিত বহু চলচ্চিত্র কান চলচ্চিত্র উৎসব, ভেনাস চলচ্চিত্র উৎসব, বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসব সহ বিশ্বের নামীদামি চলচ্চিত্র উৎসবগুলোতে প্রদর্শিত হয় ও পুরস্কার জিতে নেয়। অপু ট্রিলজি (পথের পাঁচালি, অপরাজিত, অপুর সংসার) তাঁর  সৃষ্টি। বিশ্বের শ্রেষ্ঠ সিনেমার যে কোনও তালিকায় অপু ট্রিলজিকে খুঁজে পাওয়া যায়। অপু ট্রিলজির প্রথম ছবি ‘পথের পাঁচালি’ ১৯৫৬ সালে কান চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা ‘হিউম্যান ডকুমেন্ট প্রাইজ’ জিতে নেয়।

তবে ভারতীয় ছবিতে নয়, হলিউডি ছবিতে কাজ করে অস্কার পেয়েছেন এই তালিকায় আছেন আরও বেশ কয়েক জন। প্রথম জনের নাম ভানু আথাইয়া। ১৯৮২ সালে ‘গান্ধী’ ছবিতে পোশাক পরিকল্পনার (কস্টিউডম ডিজাইন) কাজ করে অস্কার জিতে নেন তিনি। এক দিক থেকে তিনিই প্রথম ভারতীয় অস্কারবিজয়ী। এর পর ২০০৯ সালে ভারতীয় প্রেক্ষাপটে নির্মিত হলিউডি ছবি ‘স্লামডগ মিলিওনেয়ার’-এ সঙ্গীত পরিচালনার জন্য এ আর রহমান দু’টি অস্কার জয় করেন।

গীতিকার হিসেবে গুলজার-এর ঝুলিতেও যায় একটি অস্কার। এই ছবির ‘জয় হো’ গানটি বিশ্বব্যাপী সঙ্গীত চার্টগুলোতে শীর্ষ স্থান দখল করে। একই ছবির জন্য আরেক ভারতীয় রেসুল পুকুট্টি শ্রেষ্ঠ শব্দ সংযোজন বিভাগে অস্কার জিতে নেন।

১৯৪৬ সালে প্রথম ভারতীয় চলচ্চিত্র হিসেবে ‘নিচা নগর’ (The Lowly City) কান চলচ্চিত্র উৎসবে শ্রেষ্ঠ ছবির পুরস্কার জিতে নেয়। কানের দ্বিতীয় আসরেই বাজিমাত করে ভারতীয়রা। ছবিটির পরিচালক চেতন আনন্দ আর সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন বিশ্ববরেণ্য কিংবদন্তী শিল্পী পণ্ডিত রবি শঙ্কর।

ভারতীয় সিনেমাকে বিশ্বের কাছে পৌঁছে দিতে ভুমিকা রাখছেন প্রবাসী ভারতীয় চলচ্চিত্র নির্মাতারাও। এই তালিকায় আছেন শেখর কাপুর, মিরা নায়ার ও দীপিকা মেহতার মতো অস্কারের দৌড়ে প্রতিদ্বন্দিতা করা নির্মাতারা।

সূত্র : নাট্যচিন্তা, শতোত্তরবর্ষে বাংলা চলচ্চিত্র, নভেম্বর ২০১৩-এপ্রিল ২০১৪ সংখ্যা থেকে সংকলিত

3.0
মন্তব্য যোগ করুন

(ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করুন).

Enter the word
ন্যাভিগেশন
Back to top