অসমীয়া   বাংলা   बोड़ो   डोगरी   ગુજરાતી   ಕನ್ನಡ   كأشُر   कोंकणी   संथाली   মনিপুরি   नेपाली   ଓରିୟା   ਪੰਜਾਬੀ   संस्कृत   தமிழ்  తెలుగు   ردو

নির্দেশমূলক নীতি

নির্দেশমূলক নীতি
  • ৩৯ (ঙ) এবং (চ) অনুচ্ছেদ অনুসারে রাষ্ট্র এমন ভাবে তার নীতি নির্ধারণ করবে যাতে ‘কোনও শ্রমিক, পুরুষ বা মহিলার স্বাস্থ্য ও শক্তি এবং শিশুদের পেলব বয়স ক্ষতিগ্রস্ত না হয়’, ‘ শুধুমাত্র আর্থিক বাধ্যবাধকতার কারণে কোনও নাগরিককে যেন তার বয়স ও শক্তির অনুকূল নয়, এমন কাজের সঙ্গে যুক্ত না হতে হয়’ এবং ‘ শিশুদের এমন সুযোগ সুবিধা দেওয়া হবে যাতে তারা স্বাধীনতা ও মর্যাদার সঙ্গে স্বাস্থ্যকর ভাবে বিকশিত হওয়ার সুযোগ পায়’ এবং শৈশব ও যৌবনকে সব রকমের শোষণ, নিপীড়ন ও অবহেলা থেকে সুরক্ষিত রাখা যায়।
  • অনুচ্ছেদ ৪৫ --- সব শিশু ৬ বছর বয়স পর্যন্ত যাতে যথাযথ ভাবে লালিত হওয়ার ও শিক্ষার সুযোগ পায়, রাষ্ট্র তা দেখবে।
  • অনুচ্ছেদ ৪৭ --- নাগরিকদের পুষ্টি ও জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন এবং জনস্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটানোকে রাষ্ট্র তার প্রাথমিক দায়িত্ব হিসাবে দেখবে।
  • অনুচ্ছেদ ২৪৩ (ছ) তফশিল ১১ সহ --- শিক্ষা (১৭ নং বিষয়), পরিবার কল্যাণ (২৫ নং বিষয়), স্বাস্থ্য ও শৌচ ব্যবস্থা এবং শিশু কল্যাণের সঙ্গে সম্পর্কিত অন্যান্য বিষয় ছাড়া মহিলা ও শিশু বিকাশের বিভিন্ন কর্মসূচির দায়িত্ব পঞ্চায়েতের (১১ নং তফশিলের ২৫ নং বিষয়) উপর ন্যস্ত করে শিশুর লালনকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে।

শিশুর সুরক্ষা ও শিশু কল্যাণ সম্পর্কিত আরও তথ্যের জন্য দেখুন-National Mechanisms



© 2006–2019 C–DAC.All content appearing on the vikaspedia portal is through collaborative effort of vikaspedia and its partners.We encourage you to use and share the content in a respectful and fair manner. Please leave all source links intact and adhere to applicable copyright and intellectual property guidelines and laws.
English to Hindi Transliterate