হোম / কৃষি / কৃষি বীমা / প্রধানমন্ত্রী ফসল বিমা যোজনা
ভাগ করে নিন
ভিউজ্
  • অবস্থা সম্পাদনার জন্য উন্মুক্ত

প্রধানমন্ত্রী ফসল বিমা যোজনা

কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় নতুন শস্য বিমা কর্মসূচি অনুমোদিত – প্রধানমন্ত্রী ফসল বিমা যোজনা – কৃষিক্ষেত্রের জন্য বিশেষ উৎসাহব্যঞ্জক উদ্যোগ ।

প্রধানমন্ত্রী পৌরোহিত্যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে আজ ‘প্রধানমন্ত্রী ফসল বিমা যোজনা’ নামে কৃষকদের কল্যাণের লক্ষ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচি অনুমোদিত হয়েছে।

এই কর্মসূচির মূল বিষয়গুলি নিম্নরূপ :

  • ক) এই বিমার জন্য কৃষকদের খরিফ শস্যের ক্ষেত্রে সাধারণভাবে মাত্র ২ শতাংশ এবং রবিশস্যের ক্ষেত্রে ১.৫ শতাংশ হারে প্রিমিয়াম দিতে হবে। বার্ষিক বাণিজ্যিক এবং উদ্যানজাত ফসলের ক্ষেত্রে কৃষকদের মাত্র ৫ শতাংশ প্রিমিয়াম দিতে হবে। অত্যন্ত অল্প প্রিমিয়ামযুক্ত এই বিমা প্রকল্পের প্রিমিয়ামের অবশিষ্ট অর্থ কেন্দ্রীয় সরকার বহন করবে। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে ফসল নষ্ট হলে কৃষকরা বিমাকৃত অর্থের পুরোটাই ফেরৎ পাবেন।
  • খ) এই প্রকল্পে সরকারি ভর্তুকির কোনও সর্বোচ্চ সীমা থাকবে না। এমনকি, এই বিমা প্রিমিয়ামের অবশিষ্টাংশ ৯০ শতাংশ হলেও সরকারই তা বহন করবে।
  • গ) এর আগে শস্য বিমার ক্ষেত্রে প্রিমিয়াম ভর্তুকি হারের সর্বোচ্চ সীমা থাকায় কৃষকরা কম পরিমাণে বিমাকৃত অর্থ পেতেন। বিমার ক্ষেত্রে ভর্তুকিবাবদ সরকারের ব্যয় নিয়ন্ত্রণে রাখতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। নতুন বিমা প্রকল্পে প্রিমিয়ামের ভর্তুকির সর্বোচ্চ সীমা তুলে দেওয়ার ফলে কৃষকরা বিমাকৃত ফসলের পুরো অর্থই পাবেন।
  • ঘ) এই বিমার প্রকল্প রূপায়ণের ক্ষেত্রে প্রযুক্তিকে কাজে লাগানো হবে। স্মার্ট ফোন ব্যবহার করে ফসল তোলা সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ এবং আপলোড করা হবে। ফলে, কৃষকদের শস্য বিমার অর্থ পেতে আর বিলম্ব হবে না। এছাড়া, ফসল সংগ্রহে ক্ষয়ক্ষতি কমাতে দূরসংবেদী ব্যবস্থা কাজে লাগানো হবে।

নতুন এই শস্য বিমা প্রকল্পটি ‘এক জাতি – এক প্রকল্প’-এর ধরনে রূপায়িত হবে। নতুন এই প্রকল্পে পূর্ববর্তী বিমা প্রকল্পগুলির ভালো বৈশিষ্ট্যগুলিকে অন্তর্ভুক্ত করা হবে এবং আগের প্রকল্পগুলির ত্রুটি-বিচ্যুতি অপসারণ করা হবে।

বিভিন্ন ধরণের শস্য বিমা প্রকল্পগুলির মধ্যে তুলনা করলে দেখা যাবে সবকটির মধ্যে নতুন বিমা প্রকল্পেই কৃষকদের প্রিমিয়ামের হার সবচেয়ে কম। একটি মরশুমে মাত্র একবারই প্রিমিয়াম দিতে হবে। এর আগে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের ক্ষেত্রে যে বিষয়গুলিকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি, নতুন প্রকল্পে তাও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ফসল তোলার পর ক্ষতি হলে নতুন এই প্রকল্পে সারা দেশেই সাইক্লোন বা অসময়ে বৃষ্টিজনিত কারণে ক্ষতিপূরণ পাওয়া যাবে। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারনে ফসল বোনা না গেলেও ক্ষতিপূরণ দাবি করা যাবে। প্রযুক্তির ব্যবহার এই বিমার ক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

সুত্রঃ ভারত সরকার

3.03076923077
সঞ্জয়সেন Jul 30, 2019 11:40 AM

কি ভাবে ফসল বীমার আবেদন করা যায়

পুলকেশ মণ্ডল Jul 23, 2019 09:41 PM

আমার প্রশ্ন যারা দাদন বা বন্ধক জমি চাষি তারা কি সুবিধা পাবে?

Chiranjit Panja Jul 10, 2019 08:59 PM

নাম নথিভুক্ত কোথায় করতে হবে

Jaydhan Mandal Jul 26, 2018 09:33 PM

কীভাবে আমরা সরকারের থেকে সুবিধা পাব,আমার ফসলে অনের লস হল😥😥😥😥😥😥

বিশ্বজিৎ বর্মন Feb 06, 2018 09:05 AM

আমি জানতে চাই,যে কি ভাবে এই সুবিধাটি পাইতে পারি?

মন্তব্য যোগ করুন

(ওপরের বিষয়বস্তুটি সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য / পরামর্শ থাকে, তাহলে দয়া করে আমাদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করুন).

Enter the word
Back to top