ভাগ করে নিন
ভিউজ্
  • অবস্থা সম্পাদনার জন্য উন্মুক্ত

সপ্তাহান্তের বেড়ানো

কোনও জায়গা থেকে সপ্তাহান্তের ছুটিতে বেড়িয়ে আসা যাবে কি না, তা ঠিক হয়, তোমার বাড়ি থেকে সেটা কত দূরে তার ওপর। অর্থাৎ যাওয়া আসায় কতটা সময় লাগছে। তাই এই বিভাগে আমরা পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটি জেলার সপ্তাহান্তের বেড়ানোর বেশ কেয়েকটি জায়গা সম্পর্কে আলোচনা করছি। দেখে নাও কার কোনটা সুবিধা আর বেড়িয়ে পড়। এর বাইরেও প্রতি দিন তৈরি হচ্ছে বেড়ানোর নতুন নতুন জায়গা। সেগুলোর খোঁজ পেলে আমাদের জানাতে ভুলো না।

লাভপুর-ফুল্লরা
শান্তিনিকেতন
লাল মাটির দেশে দেখার মতো জায়গার অভাব নেই। কিন্তু কলকাতা থেকে মাত্র ১৬০ কিলোমিটার দূরের শান্তিনিকেতনের কোনও বিকল্প নেই।
লালবাগ (মুর্শিদাবাদ)
এখানে ঘুরতে গেলে ঘাঁটি গাড়তেই হবে বহরমপুরে। অটো করে লালবাগে পৌঁছে রিকশা বা টাঙ্গা নিয়ে নিলে খুব সহজেই দেখে নিতে পারবে বাংলার এক সময়ের রাজধানীর জমকালো চেহারা।
গৌড়-পাণ্ডুয়া অভয়ারণ্য
মালদহ (রথবাড়ি মোড়) থেকে ৩৪ জাতীয় সড়ক ধরে ফারাক্কামুখী দক্ষিণে ৩ কিমি যেতেই বাঁ হাতি পথ।
কুলিক অভয়ারণ্য
যারা পাখি ভালবাস তাদের জন্য আইডিয়াল উইকেন্ড ডেস্টিনেশন হল কুলিক। কলকাতা থেকে প্রায় ৪২৫ কিলোমিটার দূরের শহর রায়গঞ্জ।
রসিকবিল
তুফানগঞ্জ শহরের প্রাণকেন্দ্র থেকে একটু দূরেই রসিকবিল একটা বিশাল হ্রদ।
বক্সা
আলিপুরদুয়ার থেকে সোজা পথ বক্সা মোড়। সেখান থেকে পথ দু’ ভাগ – সোজা পথ গেছে বক্সাদুয়ার, ডান হাতি পথ গেছে জয়ন্তী। ট্রেনে আলিপুরদুয়ার পৌঁছে গেলে বক্সা পৌঁছনো কোনও ব্যাপারই নয়।
মংপু
কালিম্পং- শিলিগুড়ি ৩১ এ জাতীয় সড়কে রাম্বি থেকে ডান হাতে ৯ কিলোমিটার গিয়ে পাহাড়ের উপত্যকার খাঁজে আর এক রমণীয় পাহাড়ি শহর মংপু।
জোড়পোখরি-লেপচাজগৎ
ন্যাভিগেশন
Back to top